ঢাকা ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

টিকা দেয়া শেষ হলেই খোলা হবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান: প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, একাত্তর
প্রকাশ: ০৩ জুলাই ২০২১ ১৬:১৮:০২ আপডেট: ০৪ জুলাই ২০২১ ১০:১৭:১৫
টিকা দেয়া শেষ হলেই খোলা হবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান: প্রধানমন্ত্রী

দেশে চলমান টিকাদান কার্যক্রম শেষ হলেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হবে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আমরা জেনে শুনে শিশুদের মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিতে পারি না। শুধু বাংলাদেশেই এ অবস্থা না সারাবিশ্বেই এই অবস্থা।

শনিবার (৩ জুলাই) জাতীয় সংসদের সমাপনী অধিবেশনে দেয়া এক বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশে টিকা আসা শুরু হয়েছে আর কোনো সমস্যা হবে। দেশে আরও টিকা আসবে। শতকরা ৮০ শতাংশ মানুষকে বিনামূল্যে টিকা দেয়া হবে। টিকার এখন আর সমস্যা নেই। চীন এবং যুক্তরাষ্ট্র থেকে টিকা এসে গেছে আরও আসবে। আমরা অনেক টাকা দিয়ে টিকা কিনে এনেছি। কিন্তু জনগণের স্বার্থে বিনামূল্যে টিকা দিচ্ছি। আমরা সব কর্মসূচিতে অগ্রাধিকার দেই গ্রামের ও খেটে খাওয়া মানুষদের।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাবা-মায়েরা চায় না তাদের সন্তানরা এমন পরিস্থিতিতে শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে যাক। আর যাদের ছেলে-মেয়ে নেই তারা শুধু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার কথা বলেন।

সংসদ নেত্রী বলেন, আমরা ভারত থেকে করোনা টিকা কেনার ব্যবস্থা করেছিলাম। কিন্তু ভারতে যেভাবে করোনা আক্রান্ত সংখ্যা বেড়েছে ফলে তারা রফতানি বন্ধ করে দেয়। এতে কিছুদিন আমাদের সমস্যা হয়েছিল।

শেখ হাসিনা বলেছেন, জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার পর বেগম জিয়াকে ঘরে নিতে চাননি। কারণ তার আরেকটি ঘটনা আছে সেটা আমি জানি। ওই সময় জিয়াউর রহমান ছিল কুমিল্লায়। তখন তাকে কুমিল্লা থেকে ঢাকায় নিয়ে আসা হয় এবং উপসেনাপ্রধান করা হয়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু তাকে উপসেনাপ্রধান করেন।

তিনি বলেন, ওই সময় তাকে প্রমোশন দিয়ে মেজর থেকে মেজর জেনারেল করেন বঙ্গবন্ধু। আর সেই জিয়াই ষড়যন্ত্র করে মুস্তাক, কর্নেল রশিদ ফারুককে নিয়ে। মোস্তাক যখন অবৈধভাবে নিজেকে রাষ্ট্রপতি ঘোষণা করে জিয়াউর রহমানকে করে সেনাপ্রধান। সেই মোস্তাককে হটিয়ে জিয়াউর রহমান নিজেকে রাষ্ট্রপতি ঘোষণা দেয়। জিয়া ছিল একদিকে সেনাপ্রধান আরেকদিকে ছিল দেশের রাষ্ট্রপতি। এর আগে আইয়ুব খান এই একই দৃষ্টান্ত দেখিয়েছিল।

বিএনপির বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি- বাংলাদেশ না পাকিস্তান, হ্যাঁ। এইতো বিএনপি? এই হলো তাদের রাজনীতি। এই হলো তাদের গণতন্ত্র।

আরও পড়ুন: দেশে পৌঁছেছে মডার্না ও সিনোফার্মের ৪৫ লাখ ডোজ টিকা

দলটির কঠোর সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপির এমন একটি দল যে দল সৃষ্টি করেছে একজন সামরিক জান্তা। চেয়েছিল সেনাপ্রধান। তিনি সেনাপ্রধান কখন হয়েছে ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে হত্যার যে পরিকল্পনা হয় তার মূল শক্তি ছিল এই জিয়াউর রহমান।

তিনি বলেন, খুনি কর্নেল রশিদ এবং ফারুক বিবিসিকে দেয়া তাদের ইন্টারভিউতে এটি স্পষ্ট রয়েছে। জিয়াউর রহমান তাদের সঙ্গে না থাকলে কোনোদিনও এই ষড়যন্ত্র করতে পারত না। কারণ জিয়াউর রহমান ছিল উপসেনাপ্রধান।


একাত্তর/আরএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন