ঢাকা ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮

ত্বকের উপর করোনা ভাইরাসের প্রভাব

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ১৮ জুলাই ২০২১ ১৮:০৩:৫২ আপডেট: ১৮ জুলাই ২০২১ ১৮:০৫:০৯
ত্বকের উপর করোনা ভাইরাসের প্রভাব

করোনা ভাইরাস মানুষের শরীরে অনেক ধরনের প্রভাব ফেলে। সবচেয়েবেশি যে অঙ্গকে এটি আক্রান্ত করে তা হলো ফুসফুস।

তবে, প্রথম ঢেউয়ের শেষদিক পর্যন্ত করোনা সংক্রমণের যেপার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নজরে আসেনি, সেটি হলো ত্বকের ওপর ভাইরাসটির প্রভাব। এ সময় 'কোভিডটো' নামে এক ধরনের লক্ষণ দেখা দেয়, যেখানে হাত পায়ের আঙ্গুলে ছোট ছোট ফুসকুড়ির মতোদেখা যায়।

দ্বিতীয় ঢেউয়ে গিয়ে কিছুকিছু রোগীর ত্বকের রেশের মতো দেখাদেয়। আমেরিকান একাডেমী পৃথিবীর সব দেশের চিকিৎসকদের এ ব্যাপারে সতর্ক করে দেয়, যাতেকোভিড রোগীর ত্বকে কোন ধরনের লক্ষণ দেখা দিলেই তাদেরকে জানানো হয়।

অনেক রোগীর ক্ষেত্রেই পরে 'ম্যাকুলোপ্যাপুলার রেশ' অর্থাৎসারা শরীরের রেশ দেখা দেয়। পরবর্তী পর্যায়ে চিকেন পক্সের মতো ফুসকুড়িও দেখা দিতে পারে।এসব ফুসকুড়ি হাত-পাসহ সারা শরীরে হতে পারে।

কোন কোন ক্ষেত্রে এসব ম্যাকুলোপ্যাপুলার ফুসকুড়ি থেকেভেসিকুলার অর্থাৎ বড় আকারের ফুসকুড়ি দেখা দিতে পারে। অনেক ক্ষেত্রে 'অক্লুসিভইস্কেমিয়া'অর্থাৎ, রক্তক্ষরণও দেখা দেয়।

দ্বিতীয় ঢেউয়ের শেষ এবং তৃতীয় ঢেউয়ের শুরুতে কানাডাও আমেরিকাতে'চেরিএনজিওমা' বা 'নেক্রোটিক পার পুরা'র মতো ফুসকুড়ি দেখা দিতে শুরু করে। 'নেক্রোটিকপারপুরা'রক্ষেত্রে রক্তপাতের ফলে ক্ষত স্থানে কালচেদাগ পড়ে যায়।

কোভিড থেকে সেরে ওঠার পর নখে পরিবর্তন এবং চুল পড়ার সমস্যাওদেখা দেয় অনেকের। চুল পড়ার সমস্যার নাম 'পোস্ট কোভিড এফ্লুভিয়াম'। বিভিন্ন কারণে এধরনের পরিবর্তন দেখা দিতে পারে।

থাইল্যান্ডের এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, অনেকেই করোনা থেকেসুস্থ হওয়ার পর ডেঙ্গুর মতো এক ধরনেরর হিমরোজিরেশনিয়ায় আক্রান্ত হন। পরবতীতে দেখাগেলএগুলো কোভিডের জন্য হচ্ছে। অনেকের ক্ষেত্রে দীর্ঘ সময় মাস্ক পরার কারণে মুখে ব্রণেরমতো ছোট ছোট ফুসকুড়ি হয়। এগুলোকে 'মাস্কনি' বলে চিহ্নিত করা হচ্ছে।

এভাবে করোনাভাইরাস ত্বকে বিভিন্ন ধরনের সমস্যার সৃষ্টিকরছে। তাই কারো শ্বাসকষ্টের সাথে ত্বকের এসব উপসর্গ দেখা দিলে সাথে সাথে কোভিড পরীক্ষাকরা প্রয়োজন। কেননা, ত্বকের মাধ্যমেও করোনার উপসর্গ দেখা দেওয়া শুরু করতে পারে।

অধ্যাপক ডাঃ এম. ইউ. কবীর চৌধুরী, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত প্রথম চর্ম, যৌনরোগ বিশেষজ্ঞ, স্কিন ও লেজার সার্জন


একাত্তর/ এইচআরজি/ এনএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন