ঢাকা ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮

কোয়ারেনটাইন নিয়ে ঠাট্টা করে বিপদে কেটি হপকিন্স

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ১৯ জুলাই ২০২১ ১৫:৫০:৩৪ আপডেট: ১৯ জুলাই ২০২১ ১৭:৩৩:২৭
কোয়ারেনটাইন নিয়ে ঠাট্টা করে বিপদে কেটি হপকিন্স

হোটেলে কোয়ারেনটাইনের নিয়ম অমান্য করা নিয়ে হাসি ঠাট্টা করে বিপদে পড়েছেন বিতর্কিত ব্রিটিশ মিডিয়া ব্যক্তিত্ব, কলামিস্ট এবং রাজনৈতিক ধারাভাষ্যকার কেটি হপকিন্স। অস্ট্রেলীয় সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাকে ব্রিটেনে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়ার। 

রিয়েলিটি শো 'বিগ ব্রাদার অস্ট্রেলিয়া'তে অংশগ্রহণ করার জন্য হপকিন্স অস্ট্রেলিয়াতে অবস্থান করছিলেন। গত শুক্রবার (১৬ জুলাই) নিজের ইন্সটাগ্রাম অ্যাকাউন্টে একটি ভিডিও পোস্ট করেন তিনি। সেখানে তিনি ফ্রন্টলাইন কর্মীদের স্বাস্থ্যঝুঁকিতে ফেলা নিয়ে মশকরা করেছেন। 

ভিডিওতে তিনি বলেছেন, হোটেলের কর্মীরা যখন তার কক্ষে খাবার নিয়ে আসবে তখন তিনি মাস্ক ছাড়াই দরজা খুলে তা নেবেন। 

তিনি আরও বলেছেন, 'লকডাউন' মানব ইতিহাসের সবচেয়ে বড় ধাপ্পাবাজি। তবে, এ নিয়ে বিতর্ক শুরু হওয়ার পর ভিডিওটি সরিয়ে ফেলা হয়েছে।  

এ ঘটনায় সোমবার (১৯ জুলাই) তাকে শো থেকে বহিস্কার করার পাশাপাশি তার ভিসা বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার সরকার।

অস্ট্রেলিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ক্যারেন আন্ড্রুস বলেছেন, হপকিন্সের মন্তব্য লকডাউনে থাকা অস্ট্রেলীয়দের জন্য 'চপেটাঘাতের সমান'। তাকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব অস্ট্রেলিয়া থেকে বের করে দেওয়ার কথাও জানিয়েছেন অ্যান্ড্রুস। 

অস্ট্রেলিয়া থেকে বের করে দেওয়ার ব্যাপারে কোন মন্তব্য করেননি হপকিন্স। তবে, রোববার (১৮ জুলাই) তিনি জানিয়েছিলেন, কোয়ারেনটাইন নিয়ে তিনি স্রেফ 'মজা করছিলেন'। 

তিনি যে কোম্পানির জন্য কাজ করছিলেন তারা জানিয়েছে, হপকিন্সের এসব মন্তব্যের জন্যই তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। তবে, তাকে চাকরিটা দেওয়াই হয়েছিলো কেন সে প্রশ্নের কোন জবাব তারা দেয়নি। 

এর আগে গতবছর বারবার ঘৃণাপূর্ণ আচরণ করার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটার তার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিলো। বিভিন্ন সময় তাকে অভিবাসীদের 'তেলাপোকা'র সাথে তুলনা করতে ও ইসলাম ধর্মকে অবমাননা করতে দেখা গেছে। 

বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে বড় দুই শহর সিডনি ও মেলবোর্নে লকডাউন চলছে। 


ছবি: সিএনএন 

একাত্তর/এসজে 


মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন