ঢাকা ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮

করোনা শনাক্তের পাঁচশ’তম দিনে মৃত্যু ১৭৩, নতুন শনাক্ত ৭৬১৪

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ২১ জুলাই ২০২১ ১৭:২৫:২৬ আপডেট: ২২ জুলাই ২০২১ ০৯:৩৯:৫১
করোনা শনাক্তের পাঁচশ’তম দিনে মৃত্যু ১৭৩, নতুন শনাক্ত ৭৬১৪

দেশে করোনা সংক্রমণের ৫০০ তম দিনে করোনায় আরও ১৭৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৭ হাজার ৬১৪ জন। এখনও পর্যন্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে ১১ লাখ ৩৬ হাজার ৫০৩ জন।

বুধবার (২১ জুলাই) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, নতুন মৃত্যু নিয়ে দেশে করোনায় মোট মৃত্যু হয়েছে ১৮ হাজার ৪৯৮ জনের।

২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৯ হাজার ৭০৪ জন। এখনও পর্যন্ত ভাইরাসের সাথে লড়াই করে সুস্থ হয়েছেন ৯ লাখ ৬১ হাজার ৪৪ জন।

দেশে চিকিৎসাধীন রয়েছেন, ১ লাখ ৫০ হাজার ৯৬১ জন।

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ২৫ হাজার ৬২৫টি এবং নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ২৪ হাজার ৯৭৯টি। দেশে এখন পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৭৩ লাখ ৬৪ হাজার ৮৮৮টি। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা করা হয়েছে ৫৪ লাক ১২ হাজার ৩২টি এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা করা হয়েছে ১৯ লাখ ৫২ হাজার ৮৫৬টি নমুনা।

এখন পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ৪৩ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৪ দশমিক ৫৬ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যু হার এক দশমিক ৬৩ শতাংশ।

২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু হওয়া ১৭৩ জনের মধ্যে পুরুষ ৯৮ জন, আর নারী ৭৫ জন। স্বাস্থ্য অধিদফতর জানিয়েছে, করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত পুরুষ মারা গেছেন ১২ হাজার ৭৫৯ জন এবং নারী মারা গেছেন পাঁচ হাজার ৭৩৯ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে বয়স বিবেচনায় ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে রয়েছেন একজন, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে ১০ জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ৩৫ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ৪৩ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৪২ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ২২ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ১২ জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ছয় জন এবং ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে রয়েছে দুই জন।

মারা যাওয়া ১৭৩ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগের আছেন ৫৮ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের ৩২ জন, রাজশাহী বিভাগের ১১ জন, খুলনা বিভাগের ৩৮ জন, বরিশাল বিভাগের আট জন, সিলেট বিভাগের ছয় জন, রংপুর বিভাগের ১৬ জন এবং ময়মনসিংহ বিভাগের রয়েছেন চার জন।

তাদের মধ্যে সরকারি হাসপাতালের মারা গেছেন ১৪৬ জন, বেসরকারি হাসপাতালে ২২ জন এবং বাড়িতে মারা গেছেন পাঁচ জন।

সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান-আইডিসিআর জানিয়েছে, গত জুন মাসে দেশে কোভিড-১৯ রোগীদের নমুনা থেকে ভাইরাসের জিনোম সিকোয়েন্স করে দেখা গেছে, ৭৮ শতাংশই ডেল্টা ধরনের।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল গতবছর ৮ মার্চ; তা আট লাখ পেরিয়ে যায় এ বছর ৩১ মে। সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ের মধ্যে গত ৭ এপ্রিল রেকর্ড ৭ হাজার ৬২৬ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়। এরপর আগের সব রেকর্ড ভেঙে ৬ জুলাই ১১ হাজার ৫২৫ জনের করোনার ধরা পড়ে।

প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর গত বছরের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এ বছর ১১ মে তা ১২ হাজার ছাড়িয়ে যায়।

আরও পড়ুন: জুলাইয়ে শনাক্ত ৯৮৮ ডেঙ্গু রোগীর ৯৯ ভাগই ঢাকার

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান করা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডও-মিটারের বুধবার (২১ জুলাই) বিকেলের তথ্য অনুযায়ী বিশ্বে করোনায় এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৪১ লাখ ৩৬ হাজার ৪৮২ জনের। সুস্থ হয়েছেন ১৭ কোটি ৫০ লাখ ৩৮ হাজার ৮২৭ জন। চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১ কোটি ৩১ লাখ ৯০ হাজার ১৪৪ জন। ভাইরাসে মোট সংক্রমিত হয়েছেন ১৯ কোটি ২৩ লাখ ৬৫ হাজার ৪৫৩ জন।


একাত্তর/আরএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন