ঢাকা ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ৯ মাঘ ১৪২৮

রংপুর চামড়ার নজিরবিহীন দরপতন, বিপাকে ব্যবসায়ীরা

নিজস্ব প্রতিনিধি, রংপুর
প্রকাশ: ২৪ জুলাই ২০২১ ১২:২৩:১৯ আপডেট: ২৪ জুলাই ২০২১ ১২:২৫:০০
রংপুর চামড়ার নজিরবিহীন দরপতন, বিপাকে ব্যবসায়ীরা

রংপুর অঞ্চলে কোরবানীর চামড়ার নজিরবিহীন দরপতনে চরম বিপাকে পড়েছেন মৌসুমী চামড়া ব্যবসায়ীরা। লোকসানেও চামড়া বিক্রি না হওয়ায় পুজিঁ হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে ব্যবসা ছেড়েছেন কেউ-কেউ, পাশাপাশি ব্যবসা গুটানোর কথা ভাবছেন অনেকেই। চামড়া কেনাবেচার জন্য বিখ্যাত রংপুর নগরীর হাজীপাড়া চামড়াপট্টি এলাকায় একসময়ে তিনশো ব্যবসয়ীর গোডাউন থাকলেও এখন শুধু মাত্র ১০-১৫টি গোডাউন পশু চামড়া সংগ্রহ করে।

গতবারের তুলনায় এবার কম চামড়ার সংগ্রহ করেছেন ব্যবসায়ীরা। ঈদের চামড়ার ৪০ শতাংশই সীমান্ত চোরাচালানিদের দখলে চলে যাওয়ারর শঙ্কায় দিশেহারা চামড়া ব্যাবসায়ীরা। তারা বলছেন, সরকারিভাবে এ বিষয়ে কোনো উদ্যোগ না নিলে চামড়া শিল্প দিন-দিন ধবংস হয়ে যাবে। 

রংপুর অঞ্চলে এ বছর কোরবানি করার মত পশু মজুদ ছিল ১৪ লাখেরও বেশি। প্রতিবছর ঈদের দিন থেকে শুরু করে পরবর্তী এক সপ্তাহের মধ্যে নয় থেকে সাড়ে দশ লাখ চামড়া খুচরা ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে ব্যাপারীদের হাতে বিক্রি হলেও চলতি মৌসুমে এক লাখ চামড়াও বিক্রি হয়নি আর সংগ্রহ হয়েছে ছয় থেকে সাত লাখ চামড়া। 

চামড়া কেনার ব্যাপারে ব্যবসায়ীদের তেমন আগ্রহ নেই। বেশির ভাগ ব্যবসায়ী গুদাম বন্ধ করে রেখেছেন। অনেকের অভিযোগ, ট্যানারি মালিকদের সিন্ডিকেট আর লবণের দাম বেড়ে যাওয়ায় এমনটি হয়েছে। কোরবানির পশুর চামড়া কেনাবেচা নিয়ে চামড়াপট্টিতে তেমন কোনো কর্মচাঞ্চল্য নেই। চামড়া ক্রেতারা বলছেন, গত বছরের চেয়ে এবার আমদানি অনেক কম

খুচড়া বিক্রেতারা জানান চামড়া কেনা থেকে শুরু করে প্রস্তুত করা পর্যন্ত প্রতি ফিট খরচ পড়েছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, অথচ ২৫ থেকে ৩০ টাকাও কিনছে না ব্যাপারীরা। এমন অবস্থায় পুঁজি হারিয়ে পথে বসবে কয়েক হাজার কাঁচা চামড়া ব্যবসায়ী। ব্যাবসায়ীরা বলছেন, চামড়া শিল্পকে রক্ষা করতে হলে প্রক্রিয়াজাত করণে আধূনিক যন্ত্রপাতি ও সরঞ্জামের ব্যবহার বারাতে হবে। 

আরও পড়ুন: আড়িয়াল খাঁ নদে তীব্র ভাঙন, দিশেহারা স্থানীয়রা

রংপুর জেলা চামড়া ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক হারুন মিয়া জানান, মৌসুমি ব্যবসায়ীরা গরুর চামড়া ২০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৬০০ টাকায়, ছাগলের চামড়া ১০ থেকে ৩০ টাকা এবং ভেড়ার চামড়া ৫-১০ টাকায় কিনছেন। 

সরকার এ বছর গরুর চামড়া প্রতি বর্গফুটে পাঁচ টাকা দাম বাড়িয়েছে। এবার প্রতি বর্গফুট গরুর লবণযুক্ত কাঁচা চামড়ার দাম ৪০ থেকে ৪৫ টাকা এবং ঢাকার বাইরে ৩৩ থেকে ৩৭ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। আর খাসির লবণযুক্ত চামড়ার দাম ১৫ থেকে ১৭ টাকা এবং বকরির চামড়া ১২ থেকে ১৪ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। যদিও বেশিরভাগ এলাকায় চামড়া ফেলে দিয়ে প্রতিবাদ জানান ব্যবসায়ীরা।

 

একাত্তর/আরবিএস  

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন