ঢাকা ১৯ সেপ্টেম্বার ২০২১, ৪ আশ্বিন ১৪২৮

করোনা: ছেলের জন্য আইসিইউ ছেড়ে পরপারে মা

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ২৯ জুলাই ২০২১ ১২:০৮:৪৪ আপডেট: ২৯ জুলাই ২০২১ ১৫:৩৪:০১
করোনা: ছেলের জন্য আইসিইউ ছেড়ে পরপারে মা

মা-ছেলে দুজনই করোনায় আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হন চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে। মায়ের অবস্থা খারাপ হওয়ায় তাকে নেয়া হয় আইসিইউতে।

আইসিইউ বেডে মৃত্যুশয্যায় থাকা মা খবর পান ছেলের অবস্থাও খুব খারাপ। তারও আইসিইউ সাপোর্ট প্রয়োজন। তবে হাসপাতালে ছিল আইসিইউ সংকট। এমন অবস্থায় ছেলের প্রয়োজনে মা ইশারা দিয়ে চিকিৎসককে বলেন, তাকে বাদ দিয়ে ছেলেকে যেন আইসিইউ সাপোর্ট দেয়া হয়। 

মায়ের ইচ্ছা অনুসারে তাঁকে নামিয়ে ছেলেকে তোলা হয় মায়ের আইসিইউ বিছানায়। আইসিইউ থেকে বের করে আনার ঘণ্টাখানেক পরই তাঁর মৃত্যু হয়। বর্তমানে ছেলেটি আইসিইউ বেডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ছেলের অবস্থাও সংকটজনক।

মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) দিবাগত রাতে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আইসিইউতে এ ঘটনা ঘটেছে। 

আরও পড়ুন: রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আরও ১৭ জনের মৃত্যু

চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটের ফোকাল পারসন ও সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. আব্দুর রব জানান, ৬৫ বছর বয়সী বৃদ্ধ মা কানন প্রুভা ৩৮ বছর বয়সী ছেলে শিমুল পালের জন্য আইসিইউ ছেড়ে দিয়েছেন। পুরো ঘটনাই আমাদের চোখের সামনে ঘটেছে। কিন্তু আমরা নিরূপায়। মা বেঁচে নেই। মায়ের ত্যাগের কারণে ছেলেটি এখনও বেঁচে আছে। তবে মা যা করেছেন তাতে আমাদের সায় ছিল না। তারপরও মায়ের জোরাজুরিতে আমরা নিরূপায় হয়ে তাকে আইসিইউ বেড থেকে নামিয়েছি। মায়ের ছেড়ে দেয়া আইসিইউতে ছেলে শিমুল পাল এখনও বেঁচে আছেন। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আইসিইউ বেডের ইনচার্জ ডা. রাজদ্বীপ বিশ্বাস জানান, হাসপাতালের আইসিইউ সংকটের খবর শুনে মা ইশারা করে বলেন তাকে বাদ দিয়ে যেন ছেলে শিমুল পালকে আইসিইউ সাপোর্ট দেয়া হয়। শেষে পরিবারের সবার সম্মতিতে চিকিৎসকরা মাকে বাদ দিয়ে ছেলেকে আইসিইউ বেডে শিফট করান এবং মাকে আইসোলেশন বেডে নিয়ে যাওয়া হয়। এ ঘটনার ঘণ্টাখানেক পরই বৃদ্ধা মা কানন প্রুভার মৃত্যু হয়।

তিনি আরও বলেন, সবকিছু জেনে যেন কিছুই করার নেই। মায়ের অবস্থাও খারাপ ছিল। তারপরও ছেলেকে যদি অন্য কোথাও আইসিইউ সাপোর্ট দেয়া যেত, তাহলে মাকে আইসোলেশন বেডে নেয়া লাগত না। বর্তমানে ছেলের অবস্থাও বেশি ভালো না।

চট্টগ্রামের সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে কোথাও আইসিইউ শয্যা খালি নেই। সবগুলো আইসিইউ বেড রোগীতে পরিপূর্ণ বলে জানা গেছে।


একাত্তর/এআর


মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন