ঢাকা ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

একদিনের ব্যবধানে আবারও বিপৎসীমা ছাড়ালো তিস্তা

নিজস্ব প্রতিবেদক, নীলফামারী
প্রকাশ: ১৯ আগষ্ট ২০২১ ১৮:০৬:৫৩ আপডেট: ২০ আগষ্ট ২০২১ ০৯:৫৫:৫৩
একদিনের ব্যবধানে আবারও বিপৎসীমা ছাড়ালো তিস্তা

একদিনের ব্যবধানের আবারও বিপৎসীমা ছাড়িয়েছে তিস্তার পানি। উজানে ভারি বৃষ্টিপাত আর পাহাড়ি ঢলে তিস্তার পানি বেড়ে নীলফামারীর ডালিয়া পয়েন্টে বিপৎসীমার ২২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে ডায়িলা পয়েন্টে বিপৎসীমার ২২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে পানি বইছে। এতে প্লাবিত হয়েছে অন্তত ১৫টি গ্রাম, পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন পাঁচ সহস্রাধিক পরিবার। অথচ গতকাল বুধবার (১৮ আগস্ট) সকাল থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত নদীর পানি বিপৎসীমার ২৮ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়েছিল।

পানি উন্নয়ন বোর্ড নীলফামারী ডালিয়া বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আসফাউদদৌলা বলেন, বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ডালিয়া পয়েন্টে তিস্তা নদীর পানি বিপৎসীমার ১৬ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। এরপর কয়েক দফায় পানি বৃদ্ধি পেয়ে সন্ধ্যা ৬টা থেকে বিপৎসীমার ২২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। নদীর উজান ভারতের দোমোহানি পয়েন্টে সন্ধ্যা পর্যন্ত নদীর পানি বৃদ্ধি রয়েছে। দোমোহানি পয়েন্ট  থেকে পানির ওই ঢল তিস্তা ব্যারাজ পয়েন্টে আসতে কমপক্ষে ৬ ঘণ্টা সময় লাগবে। ওই ৬ ঘণ্টার ব্যবধানে তিস্তা ব্যারাজ পয়েন্টে নদীর পানি আরও বৃদ্ধি পাবে।    

পানি নিয়ন্ত্রণসহ পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ব্যারাজের সবকটি (৪৪) জলকপাট খুলে রেখে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। নদীর পানি বৃদ্ধি পেলেও এখন পর্যন্ত কোথাও কোনো বাঁধে ভাঙন দেখা দেয়নি। আমরা সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণে রয়েছি।

এদিকে ভারতের কেন্দ্রীয় পানি কমিশনের ওয়েব সাইটে দেখা যায়, ভারি বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকায় এবং পাহাড়ি ঢলে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত দোমোহানি পয়েন্টে নদীর পানি বিপৎসীমার ৮ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়। এরপর  ওই পয়েন্টে পানি কমে বিকেল ৫টা পর্যন্ত বিপৎসীমার ১৫ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়। দোমোহানি পয়েন্টে নদীর পানির বিপৎসীমা ৮৫ দশমিক ৯৫ মিটার।

এর আগে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত বিপৎসীমার ৮ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়। এরপর থেকে নদীর পানি কমতে থাকে। রাত ১০টার দিকে নদীর পানি দোমোহানি পয়েন্টের ওয়ার্নিং লেভেলে (৮৫ দশমিক ৬৫ মিটার) নামবে। এদিকে দোমোহানি পয়েন্টে গেলো ২৪ ঘন্টায় ৯৮ মিলি মিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে দোমোহানি কর্তৃপক্ষ। এমন তথ্য ওয়েব সাইটে দিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় পানি কমিশনের ওয়েব সাইটটি।

আরও পড়ুন: নোয়াখালীতে আলোচিত নারী নির্যাতনের মামলায় বাদির সাক্ষ্য গ্রহণ

উল্লেখ,উজানে টানা ভারি বৃষ্টিপাত আর পাহাড়ি ঢলে গত ১২ আগস্ট রাত থেকে বাড়তে থাকে তিস্তা নদীর পানি। যা পরের দিনে ১৩ আগস্ট সকালে বিপৎসীমা অতিক্রম করে সারাদিন ১৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। রাতে পানি কমে ১৪ আগস্ট শনিবার থেকে সোমবার সারাদিন ১০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হতে থাকে। এরপর মঙ্গলবার সকাল থেকে পানি কমে বুধবার বিকেল ৩টা পর্যন্ত ২৮ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়।  রাতে পানি বৃদ্ধি পেয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে বিপৎসীমার ২২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

একাত্তর/এসি

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন