ঢাকা ২৩ অক্টোবর ২০২১, ৮ কার্তিক ১৪২৮

সাঁথিয়ার ইছামতি নদীতে নৌকা বাইচের মুগ্ধ আসর

মুস্তাফিজুর রহমান, পাবনা
প্রকাশ: ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১৯:৩৯:২৭
সাঁথিয়ার ইছামতি নদীতে নৌকা বাইচের মুগ্ধ আসর

পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার ইছামতি নদীতে চলছে ১০ দিনেরনৌকা বাইচ। এবারের আয়োজনে অংশ নিয়েছে ২০টি নৌকা।

আর এই আয়োজন দেখতে প্রতিদিনিই দূর দুরান্ত থেকে আসছে দর্শনার্থী।বঙ্গবন্ধুর ছোট ছেলে শেখ রাসেল স্মৃতি স্মরণে এই আসর আয়োজন করা হয়েছে।

নৌকা বাইচে অংশ নিতে সাজানো নৌকা নিয়ে দিনভর সাঁথিয়ারইছামতি নদীতে আসতে থাকেন পাবনা, সিরাজগঞ্জ, নাটোর, রাজবাড়ি, কুষ্টিয়াসহ বিভিন্নজায়গার প্রতিযোগিরা। 

পরে, বিকেলে বাদ্যের তালে তালে শুরু হয় প্রতিযোগিতা। এগিয়েচলে বাহারি আকৃতির নৌকা, নজরকাড়া পোশাকে মাঝি-মাল্লাদের সমবেত কণ্ঠের ‘হেইয়োরে হেইয়ো’সারিগান।

দুই পাড়ে হাজার হাজার দর্শকের মুহুর্মুহু চিৎকার-করতালিআর মাঝি-মাল্লাদের বৈঠার ছন্দময় প্রতিযোগিতায় নদী ঘিরে তৈরি হয় মনোমুগ্ধকর দৃশ্য।

নির্মল বিনোদনের অনুষঙ্গ নৌকা বাইচ দেখতে দূর দুরান্তথেকে আসে হাজারো দর্শনার্থী। নদীর দুই পাড়, বাড়ির ছাদেও দেখা যায় মানুষের ঢল।

বিভিন্ন আকৃতির নৌকা অংশ নেয় বাইচ প্রতিযোগিতায়। ছিপ, বজরা,ময়ূরপঙ্খি, গয়না, পানসি, কোষা, ডিঙ্গি, পাতাম, বাচারি, রফতানি, ঘাসি, সাম্পান ইত্যাদিনৌকা বাইচে অংশ নেয়।

একেকটি লম্বায় প্রায় ১০০ থেকে ২০০ ফুট হয়। নৌকার সামনেসুন্দর করে সাজানো হয়। থাকে ময়ূরের মুখ, রাজহাঁসের মুখ বা অন্য পাখির মুখের অবয়ব।

আয়োজকরা বলছেন, গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যকে ধরে রাখতেসপ্তমবারের মত আয়োজন হয়েছে নৌকা বাইচের। তারা জানান, গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য সংরক্ষণেসবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

প্রতিদিন বিকেল তিনটা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত চলবেএই আসর। শেষ হবে ২৮ সেপ্টেম্বর। এবারের প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন জেলা থেকে আসা ২০টি দলঅংগ্রহণ করছে।

 


একাত্তর/এসএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন