ঢাকা ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮

বিশ্ববিদ্যালয়ে সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানোয় সমালোচনা রিজভীর

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১৫:২৩:৫৪ আপডেট: ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১৩:০১:৩৮
বিশ্ববিদ্যালয়ে সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানোয় সমালোচনা রিজভীর

দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলোতে সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানোর তীব্র প্রতিবাদ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজধানীর নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এক স্মরণসভায় অংশগ্রহণ করে একথা বলেন তিনি। 

তিনি বলেন, দীর্ঘদিন পর বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুলছে। আর বিশ্ববিদ্যালয় খোলার পর সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে বিভিন্ন ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় লাগানো হচ্ছে সিসিটিভি ক্যামেরা। সরকারের কিসের এতো ভয়? শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নজরদারিতে থাকবে কেন?

এসময় রিজভী বলেন, গোটা দেশের মধ্যে স্বৈরাচার কায়েম হলেও বিশ্ববিদ্যালয় মুক্ত থাকে। ক্যাম্পাসে সিসিটিভি বসানোর কথা বলেছে কর্তৃপক্ষ। তাহলে এতদিন যে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রাখলেন, এটা কি তবে রাজনৈতিক কারণেই বন্ধ রেখেছেন? 

আরও পড়ুন: বিএনপির সিরিজ বৈঠক সিরিজ ষড়যন্ত্রের অংশ: কাদের

সরকারকে উদ্দেশ্য করে বিএনপির এই নেতা বলেন, সরকার তো ভোটে ক্ষমতায় আসেনি। এজন্য আতঙ্ক তাড়া করছে। কোথা থেকে আন্দোলনের ঢেউ আসে। এজন্য আপনি ভিত। 

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির প্রসঙ্গ উল্লেখ করে রিজভী বলেন, মানুষ ক্ষুধার্ত। হাহাকার করছে। জিনিসপত্রের দাম হু-হু করে বাড়ছে। দেশের মানুষের আমানতের উপর সুদ কমিয়ে দিয়েছেন। সুদ কমিয়ে দিচ্ছেন। আপনি চান, ওরা মরুক। আপনারা প্লেনে প্লেনে ঘুরে বেড়াবেন, কিন্তু মানুষ মরবে।

লুটপাটের সংস্কৃতি বিদ্যমান রাখতে ও দলীয় লোকদের খুশি করতে কুইক রেন্টাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র অব্যাহত রাখা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন রুহুল কবির রিজভী। 


একাত্তর/আরএইচ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন