সেকশন

রোববার, ১৯ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
 

মার্কিন শ্রমনীতি নিয়ে চিন্তার কিছু নেই: গার্মেন্টস মালিকরা

আপডেট : ২৩ নভেম্বর ২০২৩, ০১:১৯ পিএম

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নতুন শ্রমনীতি নিয়ে চিন্তার কিছু নেই বলে মনে করছেন গার্মেন্টস মালিকরা। তাদের দাবি, বাংলাদেশের আইনে ট্রেড ইউনিয়নসহ শ্রমিক অধিকারের বিষয়টা স্বচ্ছ। তবে অর্থনীতিবিদরা বলছেন, শ্রমিক অধিকার বাস্তবায়নে এখনও অনেক কাজই বাকি আছে।

সম্প্রতি নতুন একটি শ্রমনীতি করেছে যুক্তরাষ্ট্রের বাইডেন প্রশাসন। যেখানে বলা হয়েছে, শ্রমিক নির্যাতনকারী মালিক বা পণ্য সরবরাহকারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে যুক্তরাষ্ট্র। 

গার্মেন্টস কারখানা মালিকরা বলছেন, যুক্তরাষ্ট্রের নতুন শ্রমনীতি নিয়ে আতঙ্কের কিছুই নেই। কারণ শ্রমিকদের সাথে তাদের সম্পর্ক বরাবরই ভালো।

বান্ধু ইকো অ্যাপারেলস লিমিটেডের চেয়ারম্যান কাজী মনির উদ্দিন তারিম বলেন, ‘শ্রমিকরাই আমাদের প্রাণ। ওরাই আমাদের উৎপাদনের চালিকা শক্তি। এজন্য শ্রমিকদের সাথে আমরা সবসময় বন্ধুভাবাপন্ন থাকি।’

যুক্তরাষ্ট্রের নতুন শ্রমনীতির ব্যাখ্যা দিয়ে দিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন বলেছেন, যেসব দেশ শ্রমিকদের ভয় দেখাবে, অত্যাচার করবে এবং  ন্যায্যতা ও ট্রেড ইউনিয়ন অধিকার দিবে না, তাদের উপর বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা এবং ভিসানীতি প্রয়োগ হতে পারে।

পোশাক রপ্তানিকারক ও গার্মেন্টস মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ’র সাবেক সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান বলছেন, বাংলাদেশের শ্রম আইন আন্তর্জাতিক মানের এবং ট্রেড ইউনিয়নও চলে স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায়। তিনি বলেন, ‘শ্রম আইন, শ্রমবিধি- বাংলাদেশে যে আইন আছে, সে আইন অনুযায়ী আমরা চলি। অতএব আমাদের গার্মেন্টস খাতেও কিন্তু সে আইন ভঙ্গ করার কোনো সুযোগ নেই। এজন্য বায়াররাও কিন্তু আমাদের সবসময় লক্ষ্য করে।’

তবে অর্থনীতিবিদরা বলছেন, যুক্তরাষ্ট্রে পণ্য রপ্তানি স্বাভাবিক রাখতে মজুরি আন্দোলন এবং শ্রমিক অধিকার নিয়ে সতর্ক হতে হবে। মনে করিয়ে দেন, রানা প্লাজা ইস্যুতে বাংলাদেশি অনেক পণ্যের শুল্কমুক্ত বাজার সুবিধা স্থগিত করেছিলো যুক্তরাষ্ট্র।

সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) গবেষণা পরিচালক ড. গোলাম মোয়াজ্জেম বলেন, ‘কোন বিষয়টির সঙ্গে কে যুক্ত হবেন, সেটা নির্ভর করবে ওই সমস্যাটির মাত্রা ও তার সাথে সম্পর্কিত উদ্যোক্তা এবং খাতের সংশ্লেষের ওপর।’

শ্রমিক নেতারা বলছেন, শ্রম অধিকার নিয়ে আনুষ্ঠানিক নালিশ না দিলেও ইন্টারনেটের এই যুগে যেকোনো দেশের শ্রম পরিস্থিতি সহজেই জানা যায়। শ্রমিক নেতা মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, এখানে মজুরির আন্দোলনকে কেন্দ্র করে চারজন শ্রমিককে জীবন দিতে হলো, প্রায় শতাধিক শ্রমিককে কারাবরণ করতে হলো, ৪৩টি মামলা হলো যাতে আসামি ২০ হাজারের বেশি- এই কথাগুলো বাইরের দেশগুলোকে জানাতে তো কোনো সংগঠনের প্রয়োজন হয় না।

বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্র রপ্তানি হয় মোট সাড়ে ৯ বিলিয়ন ডলারের পণ্য। পোশাকের একক বৃহৎ এই বাজার থেকেই আয় সাড়ে ৮ বিলিয়ন ডলার, যা মোট রপ্তানির ১৮ শতাংশ।

 

একাত্তর/জো
দেশবিরোধী প্রচারণায় উন্নয়ন সহযোগীরা কান দেয় না বলে মন্তব্য করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। তিনি আরও দাবি করেন, উৎপাদন পর্যায়ে দেশে জিনিসপত্রের দাম কমছে। তবে মধ্যস্বত্বভোগীদের কারণে...
ন্যূনতম মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে আন্দোলনকারী পোশাক শ্রমিকদের মধ্যে যাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার, তাদের মুক্তি এবং হয়রানি বন্ধ করার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানিয়েছে...
দেশের শ্রম আইন ও অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা) আইনে যেসব পরিবর্তন আনার মাধ্যমে শ্রম অধিকারের যে অগ্রগতি হয়েছে তা যুক্তরাষ্ট্রকে অবহিত করা হবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ।
বাংলাদেশকে বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার মতো কোনো পরিস্থিতি নেই বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ। তিনি বলেছেন, বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার মতো কিছু দেখছি না।
সাংগঠনিক অনিয়ম এবং বিশৃঙ্খলার অভিযোগে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে লাগাতার কর্মসূচির পর চট্টগ্রাম কলেজ শাখা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করা হয়েছে।
আদর্শ ও সংগঠনবিরোধী বক্তব্য দেয়ায় কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সদর উদ্দিন খানকে শোকজ (কারণ দর্শানো) নোটিশ দিয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটি।
মিয়ানমারের কাচিন রাজ্যে স্বর্ণ ও দামি অ্যামবার পাথরের খনিসমৃদ্ধ একটি এলাকার দখল নিয়েছে কাচিন ইন্ডিপেনডেন্স আর্মি (কেআইএ) ও তাদের মিত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলো। ছয় দিনের হামলার পর গত বৃহস্পতিবার তানাই...
রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে এক যুবকের হাত-পা বাধা মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।
লোডিং...
Nagad Ads
সর্বশেষপঠিত

এলাকার খবর


© ২০২৪ প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত