ঢাকা ০১ অক্টোবর ২০২২, ১৬ আশ্বিন ১৪২৯

হত্যা মামলার আসামিকে কুপিয়ে হত্যা

নিজস্ব প্রতিনিধি, কুষ্টিয়া
প্রকাশ: ০১ আগষ্ট ২০২২ ১২:৫৮:৫২ আপডেট: ০১ আগষ্ট ২০২২ ১৩:০২:৩৪
হত্যা মামলার আসামিকে কুপিয়ে হত্যা

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে এক হত্যা মামলার আসামিকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। 

নিহত মো. সেলিম (৪৫) উপজেলার সদকী ইউনিয়নের চরপাড়া গ্রামের মৃত সেকেন আলীর ছেলে। তিনি পেশায় একজন শ্রমিক ছিলেন। তিনি একই এলাকার হুমায়ন মণ্ডল (৪৪) হত্যা মামলার আসামি ছিলেন।

সোমবার (১ আগস্ট) সকাল ১১টা ১০ মিনিটের দিকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার সুত্রে জানা গেছে, সেলিম একজন ভাটা শ্রমিক। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ভাটায় কাজে যাচ্ছিলেন তিনি। 

এসময় প্রতিপক্ষের মো. সাইদুল ইসলাম (৩৫), মো. আসলাম হোসেন (৪০), মো. রাজু আহমেদসহ (২৫) বেশ কয়েকজন ধারালো দেশীয় অস্ত্র দিয়ে তাকে এলোপাথাড়ি কোপায়। পরে তার চিৎকার-চেঁচামিচিতে হামলাকারীরা চলে যায়। 

এসময় স্বজন ও স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় সেখানকার চিকিৎসক তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে পাঠান। তবে সেখানে পৌঁছানোর আগেই তার মৃত্যু হয়। 

আরও জানা গেছে, ২০২০ সালের ৬ মে জমি সংক্রান্ত বিরোধে হুমায়ন মণ্ডলকে (৪৪)  কুপিয়ে হত্যা করে প্রতিপক্ষের লোকজন। 

পরদিন নিহতের ছোট ভাই সাইদুল ইসলাম বাদী হয়ে ৩৬ জনের নামের কুমারখালী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। সেই মামলায় আসামি করা হয়েছিল সেলিমকে।

নিহতের ভাই শাহিন অভিযোগ করে বলেন, তার ভাইকে পূর্ব শত্রুতার জেরে প্রতিপক্ষের লোকজন কুপিয়ে হত্যা করেছে। 

সদকী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিনহাজুল আবেদীন দ্বীপ বলেন, 'জমি সংক্রান্ত বিরোধে ২০২০ সালে একজন খুন হয়েছিল। সেলিম সেই মামলার আসামি ছিল। আজ প্রতিপক্ষ কুপিয়ে তাকে হত্যা করেছে বলে জানতে পেরেছি।'

অপরদিকে ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছেন অভিযুক্তরা। এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ।

আরও পড়ুন: বাঘাইছড়িতে পাহাড় ধসের ১০ ঘণ্টা পর যোগাযোগ স্বাভাবিক

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক বলেন, হাসপাতালে নেয়ার আগেই সেলিমের মৃত্যু হয়েছে। সকাল ১১টা ১০ মিনিটের দিকে তাকে হাসপাতালে আনার পরে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, সেলিম একটি হত্যা মামলার আসামি ছিলেন। প্রতিপক্ষের লোকজন তাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এলাকায় আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।


একাত্তর/এসজে

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছাদ খোলা অভিবাদন!

ছাদ খোলা অভিবাদন!

৯ দিন ২১ ঘন্টা আগে