ঢাকা ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১ আশ্বিন ১৪২৯

নগরীতে একদিকে পরিবহন সংকট অন্যদিকে বাড়তি ভাড়া

জেমসন মাহবুব, একাত্তর
প্রকাশ: ০৬ আগষ্ট ২০২২ ১৮:৫২:২৯ আপডেট: ০৬ আগষ্ট ২০২২ ২২:১৬:২৮
নগরীতে একদিকে পরিবহন সংকট অন্যদিকে বাড়তি ভাড়া

জ্বালানি তেলের নতুন দামের সাথে বাস ভাড়া সমন্বয়ের আগেই রাজধানীতে চলা বাসগুলোতে বাড়তি ভাড়া আদায়ের অভিযোগ করেছেন যাত্রীরা। 

দিনভর নগরীর প্রধান প্রধান সড়কে গণপরিবহনের সংখ্যাও ছিলো কম। এদিকে, গণপরিবহনের নতুন ভাড়া ঠিক করতে মালিকপক্ষের সঙ্গে বৈঠকে বসেছে বিআরটিএ। 

বৈঠক শেষ হবার আগে বাড়তি ভাড়া আদায় না করার আহবান জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্লাহ। 

শুক্রবার রাতে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ার ঘোষণা আসে। নতুন ঘোষণা অনুযায়ী ডিজেল ১১৪ টাকা, কেরোসিন ১১৪  টাকা,  অকটেন ১৩৫ ও পেট্রল ১৩০ টাকা লিটার দরে বিক্রি হবে। 

অর্থাৎ, দাম বেড়েছে প্রতি লিটার ডিজেলের ৩৪, কেরোসিনের ৩৪, অকটেনের ৪৬ ও পেট্রলের ৪৪ টাকা। কিন্তু নতুন এই ভাড়ার সঙ্গে সমন্বয় করা হয়নি বাস ভাড়া। 

তেলের বাড়তি দামের বিপরীতে বাড়তি ভাড়া চাওয়ায় যাত্রীদের সাথে শুরু হয় বাস শ্রমিকদের বাকবিতণ্ডা। শনিবার এমনই এক দৃশ্য চোখে পড়েছে খিলক্ষেত এলাকায় রাইদা পরিবহনে। 

যাত্রীদের অভিযোগ, বিআরটিএ এখনও বাস ভাড়া সমন্বয় করেনি। তার আগেই যাত্রীদের কাছ থেকে বাড়তি ভাড়া আদায় করছে বাস শ্রমিকরা। 

যাত্রীদের দাবি, যেখানে সদরঘাট থেকে উত্তরা পর্যন্ত ভাড়া ৬০ টাকা। সেখানে আদায় করা হচ্ছে ৮০ টাকা। বাড়তি ভাড়া আদায়ের বিষয়টি অস্বীকার করছেন না সংশ্লিষ্টরাও।

বাসচালক ও সহকারীরা বলছেন, তাদেরকে বাড়তি দামে তেল কিনতে হচ্ছে। ফলে ক্ষতি পুষিয়ে নিতেই তারা বাড়তি ভাড়া আদায় করছেন। 

তবে অন্যদিনের তুলনায় শনিবার রাজধানীর সড়কে গণপরিবহনের সংখ্যা ছিলো কম। যে কারণে দীর্ঘ সময় অপেক্ষায় থাকতে হয় যাত্রীদের। 

যাত্রীরা বলছেন, বাসের জন্য ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে। শুধু বিআরটিসি বাস দেখা যায়। কিন্তু ভিড়ের কারণে ওঠা কঠিন হয়ে যাচ্ছে। অন্য গাড়ি অনেকক্ষণ পরপর একটা আসে।

রাজধানীতে বিআরটিসি বাস চলাচল স্বাভাবিক থাকলেও অভ্যন্তরীণ রুটে অন্য দিনের তুলনায় শনিবার সড়কে কম সংখ্যক বেসরকারি বাস চলাচল করতে দেখা গেছে। 

আরও পড়ুন: চট্টগ্রামে গণপরিবহন চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার

এতে প্রতিটি স্পটেই বাসের অপেক্ষায় থাকতে দেখা যায় যাত্রীদের। বাড়তি দামের ক্ষতি কমাতে অনেক পরিবহন মালিকই রাস্তায় তাদের গাড়ি নামায়নি। 

তবে মালিক সমিতির নেতাদের দাবি, সারাদেশে যান চলাচল ছিলো স্বাভাবিক। ভাড়া সমন্বয়ের সরকারি প্রজ্ঞাপন জারির আগে বাড়তি ভাড়া না নেয়ার আহবান জানিয়েছে মালিক সমিতি। 


একাত্তর/এসি

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছাদ খোলা অভিবাদন!

ছাদ খোলা অভিবাদন!

৪ দিন ১০ ঘন্টা আগে