ঢাকা ০২ অক্টোবর ২০২২, ১৬ আশ্বিন ১৪২৯

যেসব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি না হওয়ার পরামর্শ ইউজিসির

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ০৫ অক্টোবর ২০২১ ১৩:২৭:০৬ আপডেট: ০৫ অক্টোবর ২০২১ ১৩:২৮:১৩
যেসব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি না হওয়ার পরামর্শ ইউজিসির

স্নাতক পর্যায়ে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের ইউজিসির ওয়েবসাইটে লাল তারকা চিহ্নিত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)।

গত ২৩ সেপ্টেম্বর শিক্ষার্থীদের সতর্ক করে জারি করা এক গণবিজ্ঞপ্তিতে ইউজিসি জানায়, দেশের ১০৮টি অনুমোদিত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯৯টিতে ইউজিসির অনুমতিক্রমে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। বাকি ৯টি শিক্ষা কার্যক্রম এখনও শুরু করেনি।

শর্তচ্যুতির কারণে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে চিহ্নিত করা হয়েছে উল্লেখ করে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের ওয়েবসাইট ভিজিট করে অনুমোদিত বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদিত ক্যাম্পাস ও কমিশন নির্ধারিত আসন সংখ্যার ব্যাপারে নিশ্চিত হবার বিষয়েও পরামর্শ দেয় ইউজিসি।

এছাড়াও গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় অর্জিত ডিগ্রির মূল সার্টিফিকেটে স্বাক্ষরকারী হবেন সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে রাষ্ট্রপতি কর্তৃক নিয়োগ করা ভিসি ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক। শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনাকারী ৯৯টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ৯টি বিশ্ববিদ্যালয়ে রাষ্ট্রপতির নিয়োগ করা ভিসি, প্রো-ভিসি ও ট্রেজারার সকলেই নিয়োজিত রয়েছেন। এছাড়া, রাষ্ট্রপতির নিয়োগ করা ভিসি রয়েছে ৬৯টি বিশ্ববিদ্যালয়ে, প্রো-ভিসি ২২টি বিশ্ববিদ্যালয়ে এবং ট্রেজারার আছে ৫৬টি বিশ্ববিদ্যালয়ে। ২১টি বিশ্ববিদ্যালয়ে রাষ্ট্রপতির নিয়োগ করা ভিসি, প্রো-ভিসি ও ট্রেজারার পদে কেউ নেই। 

ভর্তির বিষয়ে সতর্ক করে দেওয়া বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে আছে ইবাইস ইউনিভার্সিটি, আমেরিকা বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি, কুইন্স ইউনিভার্সিটি, দি ইউনিভার্সিটি অব কুমিল্লা, এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ, টাইমস ইউনিভার্সিটি, সাউদার্ন ইউনিভার্সিটি ও গণবিশ্ববিদ্যালয়। এগুলোর কোনোটির রয়েছে অবৈধ ক্যাম্পাস, কোনোটির অনুমোদনহীন বিভাগ ও প্রোগ্রাম, কোনোটির বিষয়ে আদালতে মামলা ঝুলে আছে। কোনোটির আবার বোর্ড অব ট্রাস্টিজ নিয়েও চলছে মামলা। এছাড়া শিক্ষার্থী ভর্তির বিষয়েও নিষেধাজ্ঞা আছে কোনো কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের।

আরও পড়ুন: ই-অরেঞ্জ মালিকসহ সহযোগী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে সিআইডির মামলা

শিক্ষার্থী ভর্তির অনুমোদন পায়নি এমন বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হলো নারায়ণগঞ্জের রূপায়ন এ কে এম শামসুজ্জোহা বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহীর আহছানিয়া মিশন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহীর শাহমখদুম ম্যানেজমেন্ট ইউনিভার্সিটি, খুলনার খান বাহাদুর আহছানউল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকার মাইক্রোল্যাব ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি এবং কিশোরগঞ্জের শেখ হাসিনা ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি।

এছাড়া পুরোপুরি বন্ধ রয়েছে দারুল ইহসান বিশ্ববিদ্যালয়।

কমিশনের ওয়েবসাইটে ‘বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যাবলী’ শিরোনামের সেবা-বাক্সে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য রয়েছে।


একাত্তর/টিএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছাদ খোলা অভিবাদন!

ছাদ খোলা অভিবাদন!

১০ দিন ৪ ঘন্টা আগে