ঢাকা ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১ আশ্বিন ১৪২৯

বিএনপির হাতে হারিকেন, আমরা কাজ করি জনগণের: প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, একাত্তর
প্রকাশ: ০১ আগষ্ট ২০২২ ১৩:১৭:০৩ আপডেট: ০১ আগষ্ট ২০২২ ১৬:২৫:৪৬
বিএনপির হাতে হারিকেন, আমরা কাজ করি জনগণের: প্রধানমন্ত্রী

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেখছি বিএনপি নেতারা হারিকেন নিয়ে আন্দোলন করছেন। তাদের হাতে হারিকেনই ধরিয়ে দিতে হবে। আর মানুষকে ভালো রাখতে এবং জনগণকে নিরাপত্তা দিতে আমরা সব কাজ করছি। আর আমরা দেশের মানুষের জন্য কাজ করবো।

সোমবার (১ আগস্ট) কৃষকলীগের আয়োজনে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে স্বেচ্ছায় রক্ত ও প্লাজমাদান কর্মসূচিতে ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপি দিনের বেলায় ভোট ডাকাতি করতো। সেটা না পারলে বিজয়ী হয়েছে বলে ঘোষণা দিয়ে দিতে। এখন তাদের কাছ থেকেই নীতি কথা শুনতে হয়, সেটাই আফসোস। বিএনপির চুরি, দুর্নীতি আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। তাদের পাচার করা টাকা দেশে ফেরত আনা হয়েছে।

তিনি বলেন, নির্বাচনে জয়ী হওয়া নয়, ক্ষমতা অবৈধভাবে দখল  করা, দেশ বিকিয়ে দেওয়াই বিএনপির উদ্দেশ্য।

১৫ আগস্টের পর মানুষের ভাগ্যের কোনো উন্নয়ন হয়নি উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, গণতন্ত্রকে হত্যা করে সামরিক শাসন জারি করা হয়। তারা হ্যাঁ/ না ভোটে ক্ষমতায় বসে দল গঠন করে। ভোট চুরি করে এক তৃতীয়াংশ আসনে জয় নেয় জিয়া। 

শেখ হাসিনা বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার আগে নানা অপপ্রচার চালানো হয়েছিল। কামালকে ব্যাংক ডাকাত, এমনকি মায়ের নামে বদনাম ছড়ানো হয়। তবে জনপ্রিয়তা কমানোর সব চেষ্টায় ব্যর্থ হয় খুনিরা।

তিনি বলেন, যাদের মেজর থেকে মেজর জেনারেল করলেন, যাদের অফিসার বানালেন, যাদের মর্যাদার আসনে প্রতিষ্ঠিত করলেন, যাদের জন্য সারা জীবন জেল জুলুম সহ্য করলেন, সেই মানুষগুলোই শেখ মুজিবকে কেন হত্যা করালো সেই প্রশ্নের জবাব আজও পাই না।

এ সময় জনসংখ্যা নিয়ে সমালোচনাকারীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আমাদের জনসংখ্যা এখন সাড়ে ১৬ কোটি। এই জনসংখ্যার হিসেবও কারো কারো পছন্দ হয় না। কেন? 

তিনি বলেন, আমরা চাই প্রতিটি পরিবার সুখি হোক। আমরা শিক্ষা থেকে শুরু করে প্রতিটি ক্ষেত্রে গুরুত্ব দিচ্ছি। সাধারণ মানুষের জন্য সব রকম ব্যবস্থা নিচ্ছি। ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ দিয়েছি। বর্তমান পরিস্থিতিতে সারা পৃথিবী জ্বালানি সাশ্রয়ে গুরুত্ব দিচ্ছি। 

আরও পড়ুন: ট্রাকে নয়, এবার টিসিবির পণ্য বিক্রি নির্দিষ্ট দোকানে

তিনি বলেন, জাতির পিতাকে হত্যা করে দেশের মানুষের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলেছিল। ভবিষ্যতে যেন আর কেউ এমন ছিনিমিনি খেলতে না পারে।

কৃষকলীগের সভাপতি সমীর চন্দের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক উম্মে কুলসুম স্মৃতির সঞ্চালনায় এতে আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী ও ড. আব্দুর রাজ্জাক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আফজাল হোসেন, কৃষি ও সমবায় সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া প্রমুখ।


একাত্তর/এসি

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছাদ খোলা অভিবাদন!

ছাদ খোলা অভিবাদন!

৪ দিন ১০ ঘন্টা আগে