ঢাকা ০২ অক্টোবর ২০২২, ১৬ আশ্বিন ১৪২৯

অনুমোদনহীন ভবনেই চলছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

শারমিন নীরা, একাত্তর
প্রকাশ: ০৭ আগষ্ট ২০২২ ১৭:৪৪:৫৭
অনুমোদনহীন ভবনেই চলছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

বছরের পর বছর ধরে অনুমোদনহীন ভবনে চলছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। অনুমোদনহীন কোর্সে করা হচ্ছে শিক্ষার্থী ভর্তি। বসে বসে এসব দেখতে হচ্ছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে।

কারণ, এসব বন্ধের এখতিয়ার নেই বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের। তাই বছরে দুবার গণ-বিজ্ঞপ্তি দিয়ে কালো তালিকা প্রকাশের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের সতর্ক করে দায় সারছে কমিশন।

তাই, কমিশনের ক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি উচ্চশিক্ষা কমিশন করার কথা বলছেন সাবেক ও বর্তমান কর্মকর্তারা। তা না হলে উচ্চ শিক্ষায় নেমে আসবে চরম বিশৃঙ্খলা।

উচ্চ শিক্ষায় যুক্ত দেশের প্রায় ৪৫ লাখ শিক্ষার্থীর বড় অংশই পড়ছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের হিসেবে ১০৮টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে গড়ে প্রতি বছর ভর্তি হয় দুই লাখ ৬৬ হাজারেরও বেশি শিক্ষার্থী।

এসব বিশ্ববিদ্যালয়ের নানা অনিয়মের বিরুদ্ধে বছরে দুইবার কালো তালিকা প্রকাশ করে গণবিজ্ঞপ্তি দিয়ে শিক্ষার্থী ভর্তিতে সর্তক করে মঞ্জুরি কমিশন।

গেলো বুধবার এমনি একটি বিজ্ঞপ্তিতে ১৪টি বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা প্রকাশ হয়েছে। যেখানে নিয়ম না মেনে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি কোর্সের আড়ালে ১০টি প্রোগ্রাম পরিচালনা করার অভিযোগ উঠে এসেছে।

অনুমোদন ছাড়া ভবনে চলছে সাউথ ইস্ট, ভিক্টোরিয়া আর ইউডার মতো চারটি বিশ্ববিদ্যালয়। ব্রিটানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ট্রাস্টি বোর্ডের দ্বন্দ্ব প্রকাশ্য। দি পিপলস ইউনিভার্সিটিতে প্রতিষ্ঠার পর থেকে নেই ট্রেজারার।

শিক্ষার্থীরা বলছেন, খরচ কমের কারণে অনেকেই এসব বিশ্ববিদ্যালয়ে ছুটছেন। যেখানে একটি সার্টিফিকেট পাওয়াটাই মুখ্য।

আরও পড়ুন: বাস ভাড়া বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন, তালিকা টাঙানোর নির্দেশ

মঞ্জুরি কমিশনের সাবেক ও বর্তমান কর্মকর্তারা বলছেন, ক্ষমতা নেই তাই কোন ব্যবস্থা নিতে পারে না বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন।

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনিও মানলেন আইন সংস্কারের করা প্রয়োজনীয়তা। উচ্চ শিক্ষা কমিশন করলে ইউজিসির পক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া সহজ হবে বলছেন সংশ্লিষ্টরা।


একাত্তর/আরএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছাদ খোলা অভিবাদন!

ছাদ খোলা অভিবাদন!

১০ দিন ৪ ঘন্টা আগে