ঢাকা ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯

সৌন্দর্য হারাচ্ছে কুয়াকাটা, ভাঙনে বিলীন হচ্ছে বন

মিলন কর্মকার রাজু, কুয়াকাটা
প্রকাশ: ১৪ আগষ্ট ২০২২ ১৬:০৭:১৩ আপডেট: ১৪ আগষ্ট ২০২২ ১৬:১৭:৩৫
সৌন্দর্য হারাচ্ছে কুয়াকাটা, ভাঙনে বিলীন হচ্ছে বন

দিন দিন সৌন্দর্য হারাচ্ছে কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত। কয়েক বছরে সৈকতের ভাঙনে বিলীন হয়েছে নারকেল বাগান, বনাঞ্চল তাল ও শাল বাগান। 

আর ভাঙন ঠেকাতে সৈকতজুড়ে এবড়োখেবড়ো ভাবে জিওব্যাগ ফেলায় সৌন্দর্য নষ্ট হওয়ার পাশাপাশি বেড়ে গেছে দুর্ঘটনার সংখ্যাও। 

পর্যটকদের অভিযোগ, লাইফগার্ড না থাকায় ঝুঁকি নিয়ে সমুদ্রে নামছেন তারা। তাই সৈকতে পর্যটকের নিরাপত্তার জোর দাবি জানিয়েছেন। 

কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতের দীর্ঘ ১৮ কিলোমিটার এলাকার পূর্ব ও পশ্চিম দিকের অংশ প্রতিদিনই ভাঙছে। সাগরে বিলীন হয়েছে ফয়েজ মিয়ার নারিকেল বাগান, জাতীয় উদ্যানের বড় একটি অংশ, লেম্বুর বনাঞ্চল, তাল ও শাল বাগান। 

পর্যটকরা বলছেন, ভাঙন ঠেকানোর স্থায়ী কোন ব্যবস্থা না নিয়ে সৈকত রক্ষায় কয়েক'শ মিটার সৈকতে ফেলা হয়েছে বালুর বস্তা ও জিওব্যাগ। কিন্তু রক্ষণাবেক্ষণ না থাকায় এগুলোই এখন দুর্ঘটনার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। 

পর্যটকরা জানান, সৈকতে মানুষের ভিড় বাড়লেও তাদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। লাইফ গার্ড বা টুরিস্ট পুলিশের টহল না থাকায় ঝুঁকি নিয়েই পর্যটকরা নামছেন সমুদ্রে। 

আরও পড়ুন: লঘুচাপের প্রভাবে ফুঁসছে সাগর, উপকূলে ঝরাচ্ছে বৃষ্টি

পৌর মেয়রও বলছেন, পদ্মা সেতু চালু হওয়ার পর কুয়াকাটায় পর্যটকের সংখ্যা বেড়েছে। তবে সেই অনুযায়ী পর্যটকের জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেই। 

এ ব্যাপারে কুয়াকাটা টুরিস্ট পুলিশ বলছে, পর্যটকদের নিরাপত্তায় সার্বক্ষণিক টহল দিচ্ছেন তারা। পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী জানান, সৈকত রক্ষায় প্রকল্প হাতে নেয়া হচ্ছে। 

সিডরের জলোচ্ছ্বাসের পর থেকে কুয়াকাটা সৈকতের সরকারি-বেসরকারি সম্পদ, বনাঞ্চল সাগরের উত্তাল ঢেউয়ে বিলীন হয়েছে। কিন্তু এরপর সৈকত রক্ষায় কোন প্রকল্প নেয়া হয়নি।


একাত্তর/এসজে


মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছাদ খোলা অভিবাদন!

ছাদ খোলা অভিবাদন!

৬ দিন ২৩ ঘন্টা আগে