ঢাকা ০২ অক্টোবর ২০২২, ১৬ আশ্বিন ১৪২৯

ব্রিটিশ রাজপরিবারের আয়-ব্যয়ের খতিয়ান

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৬:০১:২১ আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ ২১:৩০:৫১
ব্রিটিশ রাজপরিবারের আয়-ব্যয়ের খতিয়ান

রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুর পর ব্রিটিশ রাজপরিবারের বর্তমান প্রধান রাজা তৃতীয় চার্লস। ইতোমধ্যে রাজা চার্লস বলেছেন, ব্রিটিশ রাজতন্ত্রের প্রধান হিসেবে তার অন্যতম প্রধান দায়িত্ব হবে রাজপরিবারের কার্যক্রম পরিচালনার ব্যয় কমিয়ে আনা। 

রাজপরিবারের বার্ষিক প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, গত বছর রাজপরিবারের বিভিন্ন খাতে ব্রিটেনের সরকারের খরচ হয়েছে প্রায় ১১৭ মিলিয়ন ডলার বা বারোশ' কোটি টাকা। কিন্তু এই বিপুল পরিমাণ অর্থ আসে কোথা থেকে, আর এগুলো খরচই বা হয় কোথায়? 

রাজপরিবারের আনুষ্ঠানিক সব কার্যক্রম পরিচালনার টাকা আসে সোভেরেইন গ্র্যান্ট নামের একটি তহবিল থেকে। আঠারো শতকে ক্রাউন এস্টেট থেকে অর্জিত সব অর্থের দায়িত্ব সরকারের কাছে হস্তান্তর করে রাজপরিবার। বর্তমানে ক্রাউন এস্টেটের আয় হয় বিভিন্ন সম্পদ থেকে, যার মধ্যে রয়েছে ব্যক্তিগত সম্পত্তি, গলফ কোর্স ও বিদেশে অবস্থিত উইন্ড ফার্ম। 

এসব সম্পদ থেকে প্রতি বছর অর্জিত লভ্যাংশের একাংশ রাজপরিবারকে দেয় ব্রিটেনের সরকার। গত বছর এর পরিমাণ ছিল প্রায় একশ' মিলিয়ন ডলার। 

এসব ব্যক্তিগত সম্পত্তি ও বিনিয়োগ ছাড়াও বিভিন্ন সম্পত্তির খাজনা থেকেও বিপুল আয় করে রাজপরিবার, গত বছর যার পরিমাণ ছিল প্রায় সাড়ে ১১ মিলিয়ন ডলার। 

এছাড়াও গত বছর সোভেরেইন গ্র্যান্ট রিজার্ভ থেকেও রাজপরিবারে প্রায় সাড়ে ১৮ মিলিয়ন ডলার খরচ করা হয়। 

এই বিপুল আয়ের একটা বড় অংশ খরচ করা হয় রাজপরিবারের রুটিন কার্যক্রম পরিচালনা করতে, যার মধ্যে রয়েছে ভ্রমণ খরচ ও সম্পত্তি রক্ষণাবেক্ষণের কাজ। 

গত বছর কেবলমাত্র হেলিকপ্টার ভ্রমণ ও রয়্যাল ট্রেনে যাত্রাতেই প্রায় তিন মিলিয়ন ডলার খরচ করা হয়। আর রাজপরিবারের বিভিন্ন কাজে যাদের নিয়োগ করা হয় তাদের বেতনের পেছনে খরচ হয় প্রায় ৩২ মিলিয়ন ডলার। এর মধ্যে রয়েছে ফুটম্যান ও মালির বেতনও। 

বাকিংহাম প্যালেসের রক্ষণাবেক্ষণ দৈনন্দিন কার্যক্রম চালানোর খরচও নেহাত কম নয়। প্যালেসের রক্ষণাবেক্ষণে গত বছর যা খরচ হয়েছে তা আগের বছরের চেয়ে ৪১ শতাংশ বেশি। 

শিগগিরই প্যালেস সংস্কারে ১০ বছরের একটি প্রকল্প হাতে নেয়ার কথা রয়েছে, যেখানে প্রায় ৪২৬ মিলিয়ন ডলার খরচ হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। 

এর বাইরে রয়েছে আরও নানা অজানা খাতে খরচ, যেমন রাজপরিবারের সদস্যদের পুলিশি নিরাপত্তা। রানির শেষকৃত্যে কত টাকা খরচ হয়েছে তাও এখনও জানা যায়নি। 

যুক্তরাজ্যে সাধারণ মানুষের জ্বালানি ও জীবনযাত্রার ব্যয় যখন পাল্লা দিয়ে বাড়ছে তখন রাজপরিবারের পেছনে এই বিপুল অঙ্কের টাকা খরচ করা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। 

আরও পড়ুন: রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক ত্যাগ

রাজপরিবারের বার্ষিক ১১৭ মিলিয়ন ডলার খরচ হিসেব করলে এতে ব্রিটেনের নাগরিকদের মাথাপিছু ব্যয় দাঁড়ায় এক দশমিক ৭৩ ডলার। তবে রাজা চার্লসের পরিকল্পনা একে আরও কমিয়ে আনার।

রাজপরিবারের পেছনে খরচ করা টাকা যে জলে যাচ্ছে না, অর্থনৈতিক সংকটের সময় সেটি প্রমাণ করা চার্লসের জন্য যথেষ্ট কঠিনই হয়ে দাঁড়াবে। 

একাত্তর/এসজে

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছাদ খোলা অভিবাদন!

ছাদ খোলা অভিবাদন!

১০ দিন ৪ ঘন্টা আগে