ঢাকা ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯

রাণীনগরে বিএনপির সম্মেলনে আওয়ামী লীগের হামলার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি, নওগাঁ ও নিজস্ব সংবাদদাতা, রাণীনগর
প্রকাশ: ১৭ নভেম্বর ২০২২ ১৮:৩৫:১৩
রাণীনগরে বিএনপির সম্মেলনে আওয়ামী লীগের হামলার অভিযোগ

নওগাঁর রাণীনগর সদরের খট্টেশ্বর ইউনিয়ন বিএনপির দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছে ।

বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) বেলা ১১ টার দিকে উপজেলা বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের পাশে একটি ভবনে সম্মেলনের ভোটগ্রহণ চলাকালীন সময়ে উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী বিএনপির সম্মেলনে হামলা চালিয়ে মোটরসাইকেল ও চেয়ার-টেবিল ভাঙচুর করে। এসময় বিএনপির অন্তত ১০ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে দাবি করা হয়। 

এসময় তারা ব্যালট ছিনিয়ে নিয়ে এবং ব্যালট বাক্স ভাঙচুর করে নির্বাচন বানচাল করেছে বলেও দাবি করেছেন উপজেলা বিএনপির নেতারা। 

এদিকে, ঘটনার সকল অভিযোগ অস্বীকার করেছেন উপজেলা আওয়ামীলীগ।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে উপজেলা বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের পাশে একটি ভবনে সদর ইউনিয়ন বিএনপির দ্বিবার্ষিক সম্মেলনের ভোট গ্রহণ চলছিল। বেলা আনুমানিক ১১ টার দিকে উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ আওয়ামী লীগের অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী একটি মিছিল নিয়ে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় বিএনপির সম্মেলন কেন্দ্রে ও বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে হামলা চালায়।

রাণীনগর উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক আতিকুজ্জামান জাপান অভিযোগ করে বলেন, পূর্বঘোষিত সময়ে সুষ্ঠুভাবে সদর ইউনিয়ন বিএনপির সম্মেলনের ভোট গ্রহণ চলছিল। সম্মেলন চলাকালীন সময়ে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগসহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মীরা আকস্মিক উপজেলা বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে এবং সম্মেলন কেন্দ্রে হামলা চালায়। তারা হামলা চালিয়ে দুইটি মোটরসাইকেল ও ১০০ চেয়ার এবং কয়েকটি টেবিল ভাঙচুর করাসহ ব্যালট বাক্স ছিনিয়ে নিয়ে ইউনিয়ন বিএনপির নির্বাচন বানচাল করে। এছাড়াও তারা বিএনপির পোস্টার ব্যানার ছিঁড়ে ফেলেন। এ ঘটনায় বিএনপির ১০ জন নেতাকর্মীকে লাঠিসোটা দিয়ে মারপিট করে আহত করা হয়েছে বলেও দাবি করেছেন তিনি।

এদিকে, সকল অভিযোগ অস্বীকার করে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রউফ দুলু বলেন, বিএনপির সম্মেলনে আওয়ামী লীগের কোন নেতাকর্মী হামলা করেনি। তাদের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে তারা নিজেরাই মারপিট ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটিয়ে আওয়ামী লীগকে দায়ী করার চেষ্টা করছে।

আরও পড়ুন: নোয়াখালীতে গৃহবধূ হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

রাণীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ জানান, গণ্ডগোলের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এখন পর্যন্ত কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


একাত্তর/জো

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

Nagad Ads