ঢাকা ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

বাহিনীকে প্রযুক্তিজ্ঞান সম্পন্ন করাই লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, একাত্তর
প্রকাশ: ২৪ নভেম্বর ২০২২ ১২:৩৩:২০ আপডেট: ২৪ নভেম্বর ২০২২ ১৩:৪৬:১৭
বাহিনীকে প্রযুক্তিজ্ঞান সম্পন্ন করাই লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী

প্রতিটি বাহিনীকে প্রযুক্তিজ্ঞান সম্পন্ন করাই সরকারের লক্ষ্য বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) যশোরে বিমান বাহিনী একাডেমিতে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর রাষ্ট্রপতি কুচকাওয়াজ-২০২২ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে এ কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, যুদ্ধবিধস্ত দেশকে পুনর্বাসন করে অর্থনৈতিক মুক্তির দিকে নিয়ে যাচ্ছিলেন, এমন সময় বুলেটের আঘাতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করা হয়। একটা যুদ্ধবিধস্ত দেশ, আমাদের কিছুই ছিল না। তারপরও বন্ধুপ্রতিম দেশের সহযোগিতা নিয়ে বিমান বাহিনীকে গড়ে তোলেন। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে বিমান বাহিনীর গৌরবোজ্জল ভূমিকা রয়েছে।

এসময় প্রযুক্তির দিক দিয়ে আমাদের বিমান বাহিনী আগের চেয়ে অনেক শক্তিশালী এবং চৌকস হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

শেখ হাসিনা আরও বলেন, ‘অনেক কাজ আমরা করে যাচ্ছিলাম। তবে করোনা, ইউক্রেন যুদ্ধ ও নিষেধাজ্ঞার কারণে বিশ্বব্যাপী মন্দা দেখা দিয়েছে। এই মন্দা থেকে আমরা যেন উত্তরণ ঘটাতে পারি, সে বিষয়ে যথেষ্ট সজাগ আছি। আমাদের অর্থনীতি এখনও গতিশীল আছে, নিরাপদ আছে। সেটুকু অন্তত আমি বলতে পারি।’

ক্যাডেটদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ যেন আমাদের ক্যাডেটদের নিয়ে গর্ব করতে পারি। তাছাড়া শান্তিরক্ষা মিশনে আমরা কাজ করি বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সঙ্গে চলতে হয়, সেজন্য প্রশিক্ষকদের কথা সব সময় মনে রাখতে হবে। প্রশিক্ষকদের কথা সবচেয়ে গুরুত্ব দিতে হবে। প্রশিক্ষণ উৎকর্ষতা বৃদ্ধি করে, এই কথাটা মনে রাখতে হবে। আমাদের স্বাধীন দেশ, আমরা মুক্তিযুদ্ধে বিজয় অর্জন করেছি, আমরা বিজয়ী জাতি। আমরা বিশ্ব দরবারে সব সময় মাথা উঁচু করে চলবো। এটাই আমাদের লক্ষ্য।’ 

সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান বিমানঘাঁটিতে বার্ষিক এ কুচকাওয়াজ শুরু হয়। বার্ষিক এ কুচকাওয়াজে যোগদান শেষে একদিনের যশোর সফরে এক জনসভায় ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী

দুপুর দুইটায় যশোরের শামস-উল-হুদা স্টেডিয়ামে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এ জনসভা অনুষ্ঠিত হবার কথা রয়েছে।

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপে আমাদের টিম নেই, এটা কষ্ট দেয় : প্রধানমন্ত্রী

যশোর জেলা আওয়ামী লীগ নেতারা জানান, এই জনসভায় ১০ লাখ মানুষের সমাবেশ ঘটবে। এ উপলক্ষে গত এক সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে জেলায় চলেছে বিশাল কর্মযজ্ঞ। যশোর শহর জুড়ে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। পথে পথে তোরণ, ব্যানার, পোস্টার ছেয়ে রয়েছে।


একাত্তর/জো 

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

Nagad Ads
ছাদ খোলা অভিবাদন!

ছাদ খোলা অভিবাদন!

২ মাস ৯ দিন আগে