ঢাকা ২৬ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

স্ক্যানার অপারেটরকে লাখ টাকা ঘুষ সেধে ধরা পুলিশ কর্মকর্তা

নিজস্ব প্রতিনিধি, কক্সবাজার
প্রকাশ: ২৫ নভেম্বর ২০২২ ১১:৪৩:৫১ আপডেট: ২৫ নভেম্বর ২০২২ ১১:৫২:৪৯
স্ক্যানার অপারেটরকে লাখ টাকা ঘুষ সেধে ধরা পুলিশ কর্মকর্তা

কক্সবাজার বিমানবন্দরে ঢাকাগামী এক যাত্রীর ব্যাগে পাঁচ লাখ নগদ টাকা দেখে টাকার উৎস ও নথিপত্র চাইলে স্ক্যানার অপারেটরকে লাখ টাকা ঘুষ সাধেন পুলিশের এক সহকারী উপ-পরিদর্শক। 

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে কক্সবাজার বিমানবন্দরের প্রবেশমুখে এ ঘটনা ঘটে।

পরে স্ক্যানার অপারেটর ও দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের সাথে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়লে তাকে ৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের কাছে হস্তান্তর করে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। 

জানা গেছে, ঘুষ সাধা ওই পুলিশ কর্মকর্তা হলেন কক্সবাজার কোর্ট পুলিশে কর্মরত সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) রবিউল ইসলাম। 

বিমানবন্দরের স্ক্যানার অপারেটর বাহার খান জানান, বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে ওই ব্যক্তির ব্যাগ স্ক্যানারে দেয়া হয়। সেখানে বিপুল পরিমাণ নগদ অর্থ দেখা গেলে তার কাছে টাকার উৎস বা বৈধ কাগজপত্র চাওয়া হয়। তিনি তা উপস্থাপন করতে না পারায় তাকে দায়িত্বরত এপিবিএনের কাছে হস্তান্তরের প্রস্তুতি নেয়া হয়। তখন তিনি নিজেকে পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে তাকে এক লাখ টাকা ঘুষ অফার করেন বলে জানান তিনি। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিমানবন্দরের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, তাদের দায়িত্ব অবৈধ কিছু গেলে তা আটকানো। এসব ক্ষেত্রে তারা নিজেরা কোন ব্যবস্থা নিতে পারেন না। তাই তাকে এপিবিএনের কাছে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে।

এদিকে, এ বিষয়ে জানতে চাইলে ৮ এবিপিএনের বিমানবন্দর ক্যাম্পের ইনচার্জ তাহসিন তাজ বিষয়টি অস্বীকার করে দাবি করেন, কোনো পুলিশ কর্মকর্তার নগদ অর্থসহ আটকের খবর তার কাছে নেই। 

তবে, ওই পুলিশ কর্মকর্তা রবিউলকে নিয়ে বিমানবন্দরে দায়িত্বরত আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের লিপিবদ্ধ করা একটি নোট একাত্তরের হাতে এসেছে। সেখানে পুরো ঘটনার বর্ণনা রয়েছে। তবে ব্যাগে পাওয়া ওই টাকা তার বেতনের টাকা বলে উল্লেখ করা হয়েছে ওই নোটে। 

ওই রিপোর্টে কোর্ট পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার নির্দেশে রবিউলকে তার কর্মস্থল কোর্ট পুলিশে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে বলেও উল্লেখ করা হয়। 

আরও পড়ুন: বিদেশী জাহাজের চুরি যাওয়া মালামাল উদ্ধার

রবিউলকে নিজেদের সদস্য নিশ্চিত করে কক্সবাজার কোর্ট পুলিশ পরিদর্শক সারোয়ার আলম জানান, তাকে কেন আটক করা হয়েছে তা এখনো জানতে পারিনি। বিস্তারিত জেনে জানাবো। 


একাত্তর/জো

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

Nagad Ads
ছাদ খোলা অভিবাদন!

ছাদ খোলা অভিবাদন!

২ মাস ৫ দিন আগে