ঢাকা ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯

সময় থাকতে কেটে পড়ুন, সরকারকে ফখরুল

নিজস্ব প্রতি‌বেদক, কুমিল্লা
প্রকাশ: ২৬ নভেম্বর ২০২২ ১৯:২৮:৪২ আপডেট: ২৬ নভেম্বর ২০২২ ২১:৪৭:৪৪
সময় থাকতে কেটে পড়ুন, সরকারকে ফখরুল

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, এই সরকারকে জনগণ আর চায় না। মানে মানে কেটে পড়ুন। নইলে পরিণতি ভালো হবে না।

শনিবার (২৬ নভেম্বর) কুমিল্লা টাউন হল মাঠে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন। 

সকল রাজনৈতিক দল নিয়ে একটি জাতীয় সরকার গঠনের প্রত্যাশা জানিয়ে তিনি বলেন, শেখ হাসিনার হাসিনার পদত্যাগ ও তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া এদেশে কোনো নির্বাচন হবে না। নির্বাচনের আগে সংসদ ভেঙে দিতে হবে। নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করে সে নির্বাচন কমিশনের অধীনে নির্বাচন হবে।

ফখরুল বলেন, অবৈধ প্রধানমন্ত্রী, জোর করে দুইবার নির্বাচন করেছে। ২০১৪ সালে কেউ ভোট দিতে যায় নাই, নির্বাচনের আগে তাদের ১৫৪ জন জয়ী হয়ে গেছেন। ২০১৮-তে রাতেই ভোট শেষ। তিনি নাকি আবার নির্বাচন করবেন। তারাও জানে ভোট হলে জামানত থাকবে না। তাই আবার আগের কৌশলে যেতে চায়। কিন্তু তা হবে না। আপনাদের সঙ্গে নিয়ে আমরা আরও দুর্বার আন্দোলন তৈরি করে সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করবো। এরপর জনগণের একটি সরকার আমরা গঠন করবো।

ফখরুল আ‌রও বলেন, প্রধানমন্ত্রী যশোরে জনসভা করেছেন, রাষ্ট্রীয় সকল সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করে সেখানে মানুষের কাছে ভোট চেয়েছেন, বলেছেন আবার নৌকায় ভোট দেন। এ কথা শুনে আমার আব্বাস উদ্দিনের গানের কথা মনে পড়ে গেছে ‘আগে জানলে তোর ভাঙা নৌকায় চরতাম না।’ এ দেশের মানুষও এখন সেই গাইতে শুরু করেছেন। 


তিনি বলেন, জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করা হয়েছে। স্বাধীনতার ৫০ বছর পর আমাদের ভোটের অধিকারের জন্য লড়াই-সংগ্রাম করে জীবন দিতে হচ্ছে। তারা সরাসরি ভোট দিতে চায় না। এজন্য আবার সমস্যা শুরু করেছে। ফের গায়েবী মামলা হয়েছে। পত্রিকায় হেডলাইন হচ্ছে, বলা হচ্ছে ককটেল বিস্ফোরণের কথা। কিন্তু পাবলিক বলছে আমরা শুনিনি।

ফখরুল বলেন, ঢাকার গণসমাবেশ নস্যাৎ করতে আগে থেকেই মামলা দেওয়া হয়েছে। এসব করে আমাদের সমাবেশ বন্ধ করা যায়নি, যাবেও না। ঢাকা-রাজশাহীতেও সমাবেশ বন্ধ করা যাবে না। আমাদের কথা পরিষ্কার, আমরা অধিকার আদায়ের জন্য শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করছি। কুমিল্লার হিরু-হুমায়ূনকে গুম করা হয়েছে। তাদের সন্তানেরা বাবাকে পায় না। সন্তানদের চোখ ছল ছল করে, আমরা সান্ত্বনা দিতে পারি না। সিলেটের ইলিয়াসকে গুম করা হয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, কিছুদিন আগে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, রিজার্ভ কি আমরা চিবিয়ে খেয়েছি? আমি বলি- রিজার্ভ আপনারা চিবিয়ে খাননি, গিলেই খেয়ে ফেলেছেন। বাংলাদেশ থেকে গত ১০ বছরে হাজার-হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার হয়ে গেছে। বিদ্যুতের জন্য ৭৮ হাজার কোটি টাকা তারা এক বছরে পাচার করেছে। সবকিছুর দাম বাড়লেও আয় বাড়েনি। কিন্তু ওদের আয় বাড়ে। তারা ফুলে ফেঁপে যাচ্ছে। একজনের চার থেকে ১০টা বাড়ি হয়েছে। আমাদের সাধারণ মানুষেরা দু’বেলা দু মুঠো খেতে পায় না। আমাদের মা-বোনেরা তাদের সন্তানকে একটি ডিমও খাওয়াতে পারছেন না।

বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশনার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের নেতা আট হাজার মাইল দূর থেকে ডাক দিয়েছেন টেক ব্যাক বাংলাদেশ। কোন বাংলাদেশ? যে বাংলাদেশের স্বপ্ন আমরা দেখেছিলাম। যে স্বপ্ন দেখে দেশ স্বাধীন করেছিলাম। আমাদের দেশের মানুষ সুখে-শান্তিতে থাকতে পারে, সেই বাংলাদেশ।

আরও পড়ুন: কর্মসূচির নামে সন্ত্রাস করলে ছাড় দেওয়া হবেনা: প্রধানমন্ত্রী

তিনি বলেন, একমাত্র খালেদা জিয়ার মাধ্যমে দেশের পরিবর্তন সম্ভব। আমরা সব দল নিয়ে জাতীয় সরকার গঠন করবো।

কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক ও কেন্দ্রীয় ত্রাণ ও পুনর্বাসন সম্পাদক হাজী আমিন উর রশিদ ইয়াছিনের সভাপতিত্বে সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, নজরুল ইসলাম খান, মির্জা আব্বাস, কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লা বুলু, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সহ সম্পাদক এবং সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা, কুমিল্লা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক মিয়াসহ কুমিল্লা সাংগঠনিক বিভাগের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ।

গণসমাবেশ পরিচালনা করেন কুমিল্লা মহানগর বিএনপির আহবায়ক উদবাতুল বারী আবু এবং সদস্য সচিব ইউসুফ মোল্লা টিপু। 

এদিকে সমা‌বে‌শে বিএন‌পি থে‌কে ব‌হিষ্কৃত সা‌বেক মেয়র ম‌নিরুল হক সাক্কু ,নিজাম উদ্দিন কায়সার ও অব্যাহতি পাওয়া আমিরুজ্জামান আমির তা‌দের অনুসারী নেতাকর্মী‌দের নি‌য়ে উপ‌স্থিত ছি‌লেন।


একাত্তর/এসি

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

Nagad Ads