ঢাকা ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯

সার্বিয়া-ক্যামেরুনের ৬ গোলের ম্যাচে কেউ জেতেনি

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ২৮ নভেম্বর ২০২২ ১৮:৩১:০১
সার্বিয়া-ক্যামেরুনের ৬ গোলের ম্যাচে কেউ জেতেনি

ক্যামেরুন ও সার্বিয়ার ম্যাচে কেউ জিততে পারেনি। পুরো ম্যাচে গোল হয়েছে ৬টি। তবুও জয় আসেনি কারো পক্ষে।

সোমবার (২৮ নভেম্বর) কাতারের আল জানুব স্টেডিয়ামে ‘জি’ গ্রুপের জমজমাট ম্যাচটিতে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে প্রথমার্ধ শেষ করা সার্বিয়া দ্বিতীয়ার্ধে ২ গোল খেয়ে জয়ের দিকে এগিয়ে যাওয়া ম্যাচটিতে ২ পয়েন্ট হাতছাড়া করেছে। ফলে ৩-৩ গোলে ড্র হয়।

এ ড্রয়ে শেষ ষোলোর সম্ভাবনা টিকিয়ে রাখল দুই দলই। ১ পয়েন্ট নিয়ে ক্যামেরুন শেষ ম্যাচে লড়বে ব্রাজিলের বিপক্ষে, সার্বিয়ার প্রতিপক্ষ সুইজারল্যান্ড।

আল জানুব স্টেডিয়ামের ম্যাচটি যে এতোটা রোমাঞ্চ ছড়াবে, সেটি অবশ্য প্রথম বিশ মিনিটে অনুমান করা যায়নি। বিশ্বকাপে টানা আট ম্যাচ হেরে যাওয়া ক্যামেরুনকে শুরু থেকে চাপে রাখে সার্বিয়া। ১০ মিনিটেই গোল পেয়ে যাচ্ছিল ইউরোপের দেশটি। সতীর্থের সঙ্গে বল দেওয়া-নেওয়া করে ডি বক্সে ঢুকে কোনাকুনি শট নিয়েছিলেন আলেকসান্দার মিত্রোভিচ।

প্রতিরোধহীন শটটি পোস্টের ভেতরের অংশ লেগেও বাইরে চলে আসে। ৭ মিনিট বাদে আরো একবার সুযোগ পান ২৮ বছর বয়সী মিত্রোভিচ। এবার বল পেয়ে যান ক্যামেরুন ডিফেন্ডারদের ভুলে। তবে অরক্ষিত থাকলেও তাড়াহুড়ায় পোস্টের বাইরে শট নেন তিনি।

ম্যাচের ২৯তম মিনিটের মাথায় ডি বক্সের কোনা থেকে ডান পায়ের লম্বা শটে গোল দিয়ে ক্যামেরুনকে এগিয়ে নেন ক্যাসটেলোট্টো। আর প্রথমার্ধের শেষ মুহূর্তে টানা জোড়া গোল করে সার্বিয়া।

ম্যাচে প্রথমার্ধ শেষে অতিরিক্ত ১ মিনিটে ডি বক্সে হেডারে গোল করেন পাভলোভিচ। এর পর অতিরিক্ত ৩ মিনিটের মাথায় আরেকটি গোল করেন স্ট্রাইকার স্যাভিচ। ডি বক্সের বাইরে থেকে বাম পায়ের লম্বা শটে গোল করেন তিনি। প্রথমার্ধ শেষ হয় ২-১ গোল ব্যবধানে।

দ্বিতীয়ার্ধের খেলায় সমতায় ফিরতে মরিয়া হয়ে উঠে ক্যামেরুন। কিন্তু উল্টো খেয়ে বসে আরও একটি গোল। ম্যাচের ৫৩তম মিনিটে সার্বিয়াকে ৩-১ গোল ব্যবধানে এগিয়ে নেন আলেক্সান্দার মিট্রোভিচ।

আরও পড়ুন: সুইস পরীক্ষায় রাতে মাঠে নামছে ব্রাজিল

ম্যাচের ফিরতে মরিয়া হয়ে উঠা ক্যামেরুন ৬৩তম ও ৬৬তম মিনিটে দুটি গোল আদায় করে নিলে সমতায় ফিরে আসে। আফ্রিকান দলটির হয়ে যথাক্রমে গোল দুটি করেন ভিনসেন্ট আওবেকার ও চুপো মোটিং। এরপর শেষ পর্যন্ত কোনো গোল না হলে ৩-৩ গোল ব্যবধানেই শেষ হয় ম্যাচটি।


একাত্তর/আরএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

Nagad Ads