ঢাকা ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯

গ্ৰুপ পর্বের শেষ দিনে আট দলের সামনে যে সমীকরণ

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ০২ ডিসেম্বর ২০২২ ১৩:২২:৫৬ আপডেট: ০২ ডিসেম্বর ২০২২ ১৮:১৪:৩২
গ্ৰুপ পর্বের শেষ দিনে আট দলের সামনে যে সমীকরণ

শনিবার থেকে শুরু হচ্ছে বিশ্বকাপের শেষ ষোলোর লড়াই। এরইমধ্যে তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে আর্জেন্টিনা, ফ্রান্স, স্পেন, সেনেগালের মতো দলগুলো।

শনিবার (৩ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ সময় ৯টায় দ্বিতীয় রাউন্ডের প্রথম ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে লড়বে যুক্তরাষ্ট্র।

এরপর দিবাগত রাত ১টার দ্বিতীয় ম্যাচে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে মাঠে নামবে অস্ট্রেলিয়া।

পরের ম্যাচগুলোতে ফ্যান্সের বিপক্ষে পোল্যান্ড, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সেনেগাল এবং জাপানের বিপক্ষে লড়বে ক্রোয়েশিয়া।

গ্রুপ পর্বের বাকি চার দল নির্বাচন করা হবে আজ শুক্রবারের (২ ডিসেম্বর) ম্যাচ শেষে।

প্রথম রাউন্ডে আজ বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় ‘এইচ’ গ্রুপে দক্ষিণ কোরিয়ার মুখোমুখি হবে পর্তুগাল। একই সময়ের অপর ম্যাচে উরুগুয়ে মাঠে নামবে ঘানার বিপক্ষে।

শুক্রবার বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাত ১টায় ‘জি’ গ্রুপে সার্বিয়ার বিপক্ষে সুইজারল্যান্ড এবং ব্রাজিলের বিপক্ষে মাঠে নামবে ক্যামেরুন।

এমন অবস্থায় গ্ৰুপ পর্বের শেষ দিনে ‘জি’ গ্রুপে দলগুলোর সামনে থাকছে যে সমীকরণ:


ব্রাজিল

ক্যামেরুনের বিপক্ষে জিতলে বা ড্র করলেই গ্রুপ সেরা হবে ব্রাজিল। হারলেও তারা গ্রুপ সেরা হতে পারবে, যদি অন্য ম্যাচটি ড্র হয় কিংবা সার্বিয়া জেতে।

আবার ব্রাজিল যদি হারে এবং সুইসরা যদি জিতে, তাহলে দেখা হবে তাদের গোল ব্যবধান। বর্তমানে গোল ব্যবধানে এগিয়ে ব্রাজিল।

সুইজারল্যান্ড

জিতলেই নকআউট পর্ব নিশ্চিত হবে সুইসদের। এই সমীকরণে গ্রুপ সেরাও হতে পারে তারা, যদি অন্য ম্যাচে ব্রাজিল হারে। তখন দুই দলের পয়েন্ট সমান হওয়ায় দেখা হবে গোল ব্যবধান।

তবে ব্রাজিল এখন গোল পার্থক্যে এগিয়ে থাকায় সুইজারল্যান্ডের জয়ের ব্যবধান অথবা ব্রাজিলের হারের ব্যবধান একটু বড় হতে হবে; ব্রাজিলের গোল ব্যবধান (+৩), সুইজারল্যান্ডের (০)।

আরও পড়ুন: জিতেও বিশ্বকাপ থেকে বিদায় জার্মানির

সার্বিয়ার বিপক্ষে ড্র করলেও শেষ ষোলোয় ওঠার সুযোগ থাকবে, যদি অন্য ম্যাচটিও ড্র হয় কিংবা ক্যামেরুন হারে।

ক্যামেরুন ১-০ গোলে জিতলে, নিজেদের ম্যাচে ড্র করলেও সুইজারল্যান্ডের সুযোগ থাকবে; তখন দুই দলের পয়েন্টের মতো গোল ব্যবধানও হবে সমান। তখন দেখা হবে কারা বেশি গোল করেছে। এই হিসেবে এখন এগিয়ে আছে ক্যামেরুন, তাই সুইজারল্যান্ডকে অবশ্যই ৪-৪ গোলে ড্র করতে হবে।


ক্যামেরুন

আফ্রিকার দলটির জিততেই হবে এবং প্রার্থনা করতে হবে যেন অন্য ম্যাচের ফল পক্ষে আসে। নিজেরা ব্রাজিলের বিপক্ষে ২-০ গোলে জিতলে এবং সুইজারল্যান্ড ড্র করলে শেষ ষোলোয় উঠবে ক্যামেরুন।

শেষ রাউন্ডে ক্যামেরুন ও সার্বিয়া জিতলে, দুই দলের পয়েন্ট সমান হবে। তবে গোল ব্যবধানে বর্তমানে সার্বিয়ার (-২) চেয়ে ক্যামেরুন (-১) এগিয়ে থাকায় তাদের জয়ের ব্যবধান যদি সমান হয় তাহলে পরের ধাপে উঠবে ক্যামেরুন।

সার্বিয়া

সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে জিততেই হবে এবং প্রার্থনা করতে অন্য ম্যাচের ফল যেনো পক্ষে আসে। অন্য ম্যাচ ড্র হলে অবশ্যই শেষ ষোলোয় উঠবে সার্বিয়া।

আবার ক্যামেরুন জিতলেও সুযোগ থাকবে, তবে সেক্ষেত্রে তাদের চেয়ে অন্তত ২ গোলের বেশি ব্যবধানে জিততে হবে সার্বিয়ার। ক্যামেরুনের (-১) চেয়ে বর্তমানে গোল ব্যবধানে পিছিয়ে সার্বিয়া (-২)।

আরও পড়ুন: স্পেনকে হারিয়ে শেষ ষোলোয় গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন জাপান

ক্যামেরুনের চেয়ে যদি সার্বিয়া ১ গোলের বেশি ব্যবধানে জেতে তাহলে তাদের পয়েন্ট ও গোল ব্যবধান সমান হবে। তখন দেখা হবে কে বেশি গোল করেছে। এই জায়গায় দুই দলই বর্তমানে সমতায়, সমান ৩টি করে গোল করেছে তারা।

গ্ৰুপ পর্বের শেষ দিনে ‘এইচ’ গ্রুপে দলগুলোর সামনে থাকছে যে সমীকরণ:


পর্তুগাল

‘এইচ’ গ্রুপে পর্তুগাল জিতলে বা ড্র করলে সুযোগ থাকছে গ্রুপ সেরা হয়ে শেষ ষোলোতে যাওয়ার। হারলেও সমস্যা নেই। তবে তাতে গ্রুপ সেরা হবার সুযোগ নাও থাকতে পারে।

তবে, অন্য ম্যাচ ড্র হলে কিংবা উরুগুয়ে জিতলে, নিজেরা হেরেও গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হবে পর্তুগিজরা।

রোনালদোরা হারলে এবং ঘানা জিতলে দুই দলের পয়েন্ট সমান হবে, তখন দেখা হবে গোল ব্যবধান।

ঘানা

উরুগুয়ের বিপক্ষে জিতলেই শেষ ষোলো নিশ্চিত হবে আফ্রিকার দেশ ঘানার। আর সেক্ষেত্রে অন্য ম্যাচে পর্তুগাল হারলে তৈরি হতে তাদের গ্রুপ সেরা হওয়ার সম্ভাবনা।

ড্র করলেও পরের ধাপে ওঠার সুযোগ থাকবে ঘানার, তবে নির্ভর করতে হবে অন্য ম্যাচের ফলের ওপর।

অন্য ম্যাচটি ড্র হলে বা পর্তুগাল জিতলে, নিজেরা ড্র করেও শেষ ষোলোয় উঠবে ঘানা।

আবার যদি দক্ষিণ কোরিয়া ১-০ গোলে জেতে এবং ঘানা ড্র করে, তাহলে দুই দলের পয়েন্ট ও গোল ব্যবধান সমান হবে। তখন দেখা হবে কারা বেশি গোল করেছে, সেই হিসেবে এগিয়ে যাবে ঘানা; প্রথম দুই ম্যাচে ঘানা গোল করেছে ৫টি, কোরিয়া ২টি।


দক্ষিণ কোরিয়া 

পর্তুগালের বিপক্ষে অবশ্যই জিততে হবে এবং প্রার্থনা করতে অন্য ম্যাচের ফল যেন পক্ষে আসে।         

অন্য ম্যাচটি ড্র হলে নিজেরা ২-০ গোলে জিতলেই নকআউট পর্বে উঠবে কোরিয়া। তবে তাদের জয়ের ব্যবধান ১ গোলের হলে তখন দেখা হবে কারা বেশি গোল করেছে।

উরুগুয়ে

ঘানার বিপক্ষে অবশ্যই জিততে হবে এবং অন্য ম্যাচের ফল পক্ষে আসতে হবে। অন্য ম্যাচটি ড্র হলে নিজেদের ম্যাচে যেকোনো স্কোরলাইনে জিতেই লক্ষ্য পূরণ হবে লাতিন আমেরিকার দলটির।

দক্ষিণ কোরিয়া ও উরুগুয়ে, উভয় দলই জিতলে তাদের পয়েন্ট হবে সমান ৪, তখন গোল ব্যবধান দেখা হবে। 

বর্তমানে গোল ব্যবধানে একটু ভালো অবস্থানে দক্ষিণ কোরিয়া (-১), উরুগুয়ে (-২)। তাই এক্ষেত্রে প্রতিপক্ষের চেয়ে দুই গোলের বেশি ব্যবধানে জিতলে শেষ ষোলোর টিকেট পাবে উরুগুয়ে।

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপ থেকে বিদায়ের পর পদত্যাগ করলেন বেলজিয়াম কোচ

আবার উরুগুয়ে যদি কোরিয়ানদের চেয়ে এক গোলের বেশি ব্যবধানে জেতে, তখন গোল ব্যবধান সমান হওয়ায় দেখা হবে কারা বেশি গোল করেছে। এই জায়গাতেও ভালো অবস্থানে আছে এশিয়ার দেশটি; তারা ২ গোল করেছে, উরুগুয়ে জালের দেখাই পায়নি এখনও।


একাত্তর/আরএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

Nagad Ads