ঢাকা ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯

২৫ বছরেও শান্তি চুক্তির বাস্তবায়ন হয়নি: সন্তু লারমা

নয়ন আদিত্য, একাত্তর
প্রকাশ: ০২ ডিসেম্বর ২০২২ ২২:০২:২০
২৫ বছরেও শান্তি চুক্তির বাস্তবায়ন হয়নি: সন্তু লারমা

পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২৫ বছর পেরিয়ে গেলেও তার বাস্তবায়ন হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন জনসংহতি সমিতি ও বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের সভাপতি সন্তু লারমা।  

তার অভিযোগ, শান্তিচুক্তির পর ১৫টি গণহত্যা সংঘটিত হয়েছে। যতদিন পর্যন্ত অসাম্প্রদায়িক সরকার ক্ষমতায় না আসবে ততোদনি চুক্তি বাস্তবায়ন হবে না।

শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির ২৫তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি ও বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের সভাপতি জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা ওরফে সন্তু লারমা বলেন, পাকিস্তান আমল থেকে আজ পর্যন্ত অমুসলিম অধ্যুষিত পার্বত্যাঞ্চলকে মুসলিম অধ্যুষিত এলাকায় পরিণত করার ষড়যন্ত্র অব্যাহত রয়েছে। চলছে সামরিক শাসন। পাকিস্তান সরকারের মতোই চালানো হচ্ছে শাসন ও শোষণ।

তার অভিযোগ, পার্বত্যাঞ্চল বাংলাদেশের সংবিধান অনুযায়ী শাসিত হচ্ছে না। পার্বত্যাঞ্চলে আজকে সাম্প্রদায়িক উগ্র জাতীয়তাবাদ উসকে দেওয়া হচ্ছে। দুর্নীতি, দমন-পীড়ন চলছে।

বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সংসদ সদস্য রাশেদ খান মেনন বলেন, আজকে এ চুক্তির রজতজয়ন্তী উদযাপন করার কথা ছিল। কিন্তু আজকে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি যথাযথ ও পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বৃহত্তর আন্দোলনে শামিল হবার জন্য আলোচনা সভা করতে হচ্ছে।

তিনি বলেন, জিয়াউর রহমান পাহাড়ে যেটা করতে চেয়েছিলেন সেটাই আজ সেখানে বাস্তবায়িত হয়েছে। জিয়াউর রহমান যে নিরাপত্তার চশমা দিয়ে সমাধান দেখেছেন, সেই নীতি এখনও বিদ্যমান।

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক আন্তর্জাতিক কমিশনের সদস্য ও মানবাধিকার কর্মী খুশি কবির বলেন, চুক্তির ২৫ বছর পার হয়ে গেছে। কিন্তু বাস্তবায়নের দিকে না এগিয়ে পিছিয়ে যাচ্ছে। আদিবাসী দিবসে কেন আমরা এটা বলতে পারবো না। স্বাধীনতার ৫১ বছর হয়ে গেছে। অথচ আমরা পিছনের দিকে হাঁটছি।

আলোচনা সভায় অন্য নেতাদের অভিযোগ, ২৫ বছরেও সেই চুক্তির পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন হয়নি। বরং পাহাড়ে এখনও ধর্ষণ নিপীড়ন ও উন্নয়নের নামে লুটপাট চলছে।

আরও পড়ুন: বিএনপি জঙ্গিদের মাঠে নামিয়েছে, অভিযোগ কাদেরের

এদিকে সিরডাপ মিলনায়তনে আরেক অনুষ্ঠানে সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ বলেন, একটি গোষ্ঠী আবারও পাহাড়ে অশান্ত করছে। জঙ্গি প্রশিক্ষণ দেয়া শুরু করেছে।

উল্লেখ্য, ১৯৯৭ সালের এই দিনে (২ ডিসেম্বর) অশান্ত পার্বত্য অঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্ঠায় ৭২ দফার একটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়। 


একাত্তর/এসি

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

Nagad Ads