সেকশন

সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১
 

শতাধিক লোকের কিডনি বিক্রি, গ্রেপ্তার পাঁচ

আপডেট : ১২ অক্টোবর ২০২১, ০৯:৪৫ পিএম

জয়পুরহাট ও রাজধানীর নর্দ্দা এলাকায় অভিযান চালিয়ে কিডনি বিক্রি চক্রের পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

চক্রটি তিনটি দলে ভাগ হয়ে কিডনি ক্রয় ও বিক্রয়ের কাজ করতেন বলে জানিয়েছে র‍্যাব। এভাবে শতাধিক ব্যক্তির কিডনি বিক্রি করা হয়েছে বলে জানিয়েছে র‍্যাব। এ জন্য চক্রটি রোগীদের কাছ থেকে নিত ১৫ থেকে ২০ লাখ টাকা। আর কিডনিদাতার দেয়া হতো মাত্র দুই লাখ টাকা।

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) ভোরে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তার হয়েছেন চক্রের প্রধান শাহরিয়ার ইমরান আহম্মেদ (৩৬), মেহেদী হাসান (২৪), সাইফুল ইসলাম (২৮),আবদুল মান্নান (৪৫) ও তাজুল ইসলাম ওরফে তাজু (৩৮)। অভিযানে ভুক্তভোগী কিডনিদাতাদের চারটি পাসপোর্ট, চিকিৎসার জন্য পাসপোর্ট এবং ভিসা–সম্পর্কিত কাগজপত্র, পাঁচটি মুঠোফোন এবং দেশি-বিদেশি মুদ্রা জব্দ করা হয়।

দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‍্যাবের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তারিত জানিয়েছেন সংস্থাটির আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন।

আরও পড়ুন: খালেদা জিয়া হাসপাতালে ভর্তি

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, চক্রের সদস্যরা জয়পুরহাটসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের নিম্নবিত্ত পরিবারের সদস্যকে টার্গেট করে অর্থের প্রলোভন দেখান। ভারতের বিভিন্ন হাসপাতালে নিয়ে কিডনিদাতার কাছ থেকে কিডনি সংগ্রহের পর নির্ধারিত রোগীর শরীরে প্রতিস্থাপন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে খন্দকার আল মঈন বলেন, চক্রটি প্রায় ১০ বছর ধরে সক্রিয়। তারা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও রোগী ও দাতা সংগ্রহ করে। এই চক্রে ১৫ থেকে ২০ জন সদস্য রয়েছেন। তাঁরা তিনটি ভাগে ভাগ হয়ে কিডনি ক্রয়-বিক্রয়ের পুরো কাজ সম্পন্ন করেন। একটি গ্রুপ ঢাকায় অবস্থান করে। তারা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ বিভিন্ন মাধ্যমে কিডনি প্রয়োজন এমন বিত্তশালী রোগী খুঁজে বের করে। তারপর রোগীর পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করে কিডনি সংগ্রহ করে দেওয়ার কথা বলে সম্পর্ক স্থাপন করে।

দ্বিতীয় গ্রুপটি দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের দরিদ্র মানুষ খুঁজে বের করে। তাদের অর্থনৈতিক দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে অর্থের বিনিময়ে কিডনি বিক্রির জন্য প্রলোভন দেখিয়ে ঢাকায় নিয়ে আসে। তৃতীয় দলটি প্রলোভনের শিকার কিডনিদাতাদের বিভিন্ন ডায়াগনস্টিক সেন্টারে রোগীর সঙ্গে রক্তের নমুনা মেলানোসহ বিভিন্ন পরীক্ষা–নিরীক্ষার কাজ করে।

খন্দকার আল মঈন আরও বলেন, পরীক্ষায় কিডনি প্রতিস্থাপনের উপযুক্ততা নিশ্চিত হলে তৃতীয় দলটি ভুয়া কাগজপত্র তৈরি করে কিডনিদাতার পাসপোর্ট ও ভারতে ভিসার ব্যবস্থা করে। পাশের দেশে অবস্থানকারী আরেকটি চক্র বাংলাদেশি চক্রের যোগসাজশে ভুক্তভোগী কিডনিদাতাকে বিমানবন্দর বা স্থলবন্দর থেকে নিজেদের জিম্মায় নিয়ে নেয়। তারপর বিভিন্ন হাসপাতালে অস্ত্রোপচার করে নির্ধারিত রোগীর জন্য কিডনি সংগ্রহ করা হয়। সব প্রক্রিয়া শেষে ভুক্তভোগীদের বৈধ বা অবৈধ উপায়ে দেশে ফেরত পাঠানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, একটি কিডনি প্রতিস্থাপনের জন্য চক্রটি ১৫ থেকে ২০ লাখ টাকা নেয় রোগীদের কাছ থেকে। আর কিডনিদাতার সঙ্গে চার লাখ টাকার চুক্তি করলেও দিত মাত্র দুই লাখ। এমনকি নির্ধারিত টাকা না দিয়ে তাদের ভয়ভীতি দেখাতো। একটি কিডনি প্রতিস্থাপনের পর চক্রের প্রধান ইমরান নিতেন ৫ থেকে ১০ লাখ টাকা। 

আইনি জটিলতা এড়াতে ভুক্তভোগীর পাসপোর্ট বা অন্য কাগজপত্র নিজেদের কাছে রেখে দেন চক্রের সদস্যরা। চক্রের প্রধান ইমরান ফেসবুকে ‘বাংলাদেশ কিডনি ও লিভার পেশেন্ট চিকিৎসাসেবা’ এবং ‘কিডনি লিভার চিকিৎসাসেবা’ নামে দুটি পেইজ চালাতো বলে জানায় র‍্যাব।


একাত্তর/এআর

স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে এখন থেকেই স্মার্ট অবকাঠামো নির্মাণ, দেশের জনগণের ব্যবহার উপযোগী নিত্য নতুন প্রযুক্তির উদ্ভাবন ও স্মার্ট প্রযুক্তি ব্যবহারে দেশের জনগণকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। কেবল ৫০ নয়,...
রাজধানীর ধানমন্ডির একটি রেঁস্তোরায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের ‘ম২২’ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নিজেকে নিয়ে প্রকাশিত সংবাদকে অসত্য বলে দাবি করেছেন পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদ। শনিবার ‘আমার কিছু কথা’ শিরোনামে এক ভিডিও বার্তায় তার বিরুদ্ধে...
রমজানের মধ্যে শসার বাজার চড়া দাম থাকলেও বর্তমানে শসা চাষিরা শসার দাম নিয়ে বেশ বিপাকে পড়েছেন । তবে এমন দুঃসময়ে শসা চাষিদের পাশে দাঁড়িয়েছে দেশের সেরা রিটেইল চেইন সুপারশপ ‘স্বপ্ন’।
গত বছরের ৭ অক্টোবর গাজা থেকে হামাসের নজিরবিহীন হামলা রুখতে ব্যর্থতার দায় নিয়ে পদত্যাগ করেছেন ইসরাইলের সামরিক গোয়েন্দা বাহিনীর প্রধান মেজর জেনারেল আহারন হালিভা।
বিশ্বের অন্যতম ধনী দেশ কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানি দুই দিনের সফরে ঢাকা পৌঁছেছেন।
সাদি আপনি ছিলেন কত জনের কাছের মানুষ। আপনি চলে গিয়ে সকলের হৃদয়ে শুন্যতা তৈরি করে গেলেন। সাংস্কৃতিক অঙ্গনেও একটা শূন্যতা তৈরি হয়েছে এবং আমরা দিক নির্দেশনা হারিয়েছি। এখন আপনি ওপারে আপনার মায়ের কোলে,...
চীনের সবচেয়ে জনবহুল প্রদেশ গুয়াংডংয়ে কয়েকদিনের ভারী বৃষ্টির কারণে সৃষ্ট শতবর্ষের সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যায় প্রায় ৬০ হাজার মানুষকে তাদের বাড়িঘর থেকে সরিয়ে নিয়েছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ।
লোডিং...
Nagad Ads
সর্বশেষপঠিত

এলাকার খবর


© ২০২৪ প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত