সেকশন

রোববার, ১৯ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
 

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ট্রেনে আগুনের পরিকল্পনা

আপডেট : ০৬ জানুয়ারি ২০২৪, ০৬:০৭ পিএম

রাজধানীর গোপীবাগে বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে ভয়াবহ আগুন দেয়ার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে আট জনকে গ্রেপ্তার করেছে ডিবি পুলিশ। এদের একজন যুবদল নেতা কাজী মনসুর স্বীকার করেছেন নির্বাচন বানচাল করতে ভিডিও কনফারেন্সে মিটিং করে নাশকতার এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের দাবি, বিএনপি নেতা নবী উল্লাহ নবী এই আগুন নাশকতার পরিকল্পনাকারী ও অর্থদাতা। 

গোয়েন্দা পুলিশের দাবি, গোপীবাগে ট্রেনে আগুনের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করা যুবদল নেতা কাজী মনসুর জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেন, বিএনপি যুবদল ও ছাত্রদলের নেতা কর্মীরা ভার্চূয়াল মিটিং করে ট্রেনে ও নির্বাচনী কেন্দ্রে নাশকতার পরিকল্পনা করে। দলটির কয়েকজন শীর্ষ নেতাসহ ঢাকা মহানগর দক্ষিন বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক নবী উল্লাহ নবী এই পরিকল্পনায় জড়িত ছিলেন। 

শনিবার ভোররাতে অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করা হয় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সদস্য কাজী মোহাম্মদ মনসুর আলমকে। এরপর গোয়েন্দা পুলিশের কাছে একটি স্বীকারোক্তি দেন। সেখানেই উঠে এসেছে আগুন নাশকতার পরিকল্পনা বিস্তারিত। মনসুরের স্বীকারোক্তির ওই ভিডিও পেয়েছে একাত্তর।

গোয়েন্দা পুলিশকে তিনি জানান, বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুন দেওয়ার আগে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক খন্দকার এনামুল হক এনামের সভাপতিত্বে ভার্চুয়ালি একটি বৈঠক হয়। হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে ১৭ মিনিটের ওই বৈঠক হয় শুক্রবার বিকেল ছয়টা ২ মিনিটে। 

সেখানেই সিদ্ধান্ত হয় ট্রেনে আগুন দেওয়ার। সিদ্ধান্ত হওয়ার পর নাশকতার দায়িত্ব দেওয়া হয় একজনকে। এরপর রাত ৯টা ৫ মিনিটে বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুন দেয়া হয়। মহানগর দক্ষিণের আহ্বায়ক, সদস্য সচিবসহ তাদের যতগুলো টিম আছে তাদের টিম লিডাররা মিটিংয়ে অংশ নেন। সেখানে দুটি সিদ্ধান্ত হয়েছে, একটি থানা ভিত্তিক, আরেকটি ট্রেনের ব্যাপার নিয়ে।

শনিবার দুপুরে রাজধানীর মিন্টু রোডে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে একই কথা জানিয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের প্রধান হারুন অর রশীদ বলেন, কাজী মনসুরকে গ্রেপ্তার করার পর তার কাছে আমরা দুটি বিষয় জানতে পেরেছি। তার বড় ভাই, বড় মাপের নেতা এনামুল ইসলাম খন্দকার ও রবিউল ইসলাম নয়ন। তাদের পরিকল্পনা অনুযায়ী প্রতিটি ওয়ার্ডে টাকা, ককটেল ও বিস্ফোরক দ্রব্য বিতরণ করেছে; নির্বাচনি ক্যাম্পগুলোতে তারা আগুন লাগাবে। ককটেল বিস্ফোরণ করবে, উদ্দেশ্য কেউ যেন ভোটকেন্দ্রে না আসে। এই পরিকল্পনায় জড়িত পাঁচজনকে আমরা গ্রেফতার করেছি। তাদের কাছে ৩০ হাজার টাকা ও ২০ পিস ককটেল উদ্ধার করা হয়েছে।

তিনি বলেন, দু’দিন আগে তাদের হাইপ্রোফাইল ভিডিও কনফারেন্স ছিল। সেখানে প্রথমে আসে মহানগর দক্ষিণ যুবদলের আহ্বায়ক খন্দকার এনাম। তারপর আসে সদস্য সচিব রবিউল ইসলাম নয়ন, যুগ্ম আহ্বায়ক এম এ গাফফার ও ইকবাল হোসেন বাবলু, দপ্তর সম্পাদক শাহজাহান চৌধুরী এবং যুবদলের আটটি টিমের লিডার। সেই কনফারেন্সে ছিলেন কাজী মনসুর। কনফারেন্সে এক পর্যায়ে বলা হলো, বৃহত্তর ময়মনসিংহ থেকে ঢাকা পর্যন্ত ট্রেনে; বিশেষ করে নরসিংদীর কাছে এসে সুবিধাজনক জায়গায় অগ্নিসংযোগ করা। আরেকটি হলো কমলাপুর থেকে নারায়ণগঞ্জ রুটে যাত্রীবাহী বগিতে অগ্নিসংযোগ করা; যাতে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের দৃষ্টি আকর্ষণ হয়, জনগণ চূড়ান্তভাবে ভীত হয়।

বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুন দেওয়া ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সদস্য কাজী মোহাম্মদ মনসুর আলম। ইমেজ: একাত্তর

হারুন অর রশীদ আরও বলেন, দক্ষিণ যুবদল নেতা রবিউল ইসলাম নয়নের তত্তাবধানে যুবদলের কয়েকটি টিম লালবাগের কয়েকজন দাগি সন্ত্রাসী দিয়ে বেনাপোল এক্সপ্রেসে আগুন লাগানো হয়। ভিডিও কনফারেন্সে বলা হয়- ট্রেনে কে আগুন লাগাবেন? কনফারেন্সে থাকা ১০-১২ জনের একজন বলেন তিনি আগুন লাগাতে পারবে। তবে তদন্তের স্বার্থে এই মুহূর্তে তার নামটি আমরা বলবো না।

তিনি বলেন, এছাড়া ভিডিও কনফারেন্সে থাকা আরও তিনজন আগুন লাগাতে পারবে বলে জানায়। তারা ২০১৩-১৪ সালে বিভিন্ন এলাকায় বোমা নিক্ষেপ ও অগ্নিসংযোগ করেছিল। তারা মিলে যাত্রাবাড়ীর আশপাশের এলাকা থেকে ট্রেনটিতে অগ্নিসংযোগ করে। 

ডিবি প্রধান বলেন, যে মোবাইল থেকে ভিডিও কনফারেন্স করা হয়েছিল সেই মোবাইলটি উদ্ধার করেছে ডিবি। মোবাইলটি কাজী মনসুরের। তিনি আমাদের কাছে গ্রেফতার আছেন। যারা এক সময় জেলখানায় দাগি আসামি হিসেবে পরিচিত ছিল তারা এই অগ্নিসংযোগ করে। যাদের গ্রেফতার করা হয়েছে তাদের রিমান্ডে এনে ট্রেনে অগ্নিসংযোগের বিষয়ে বিস্তারিত পরে জানানো হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

উল্লেখ্য, শুক্রবার রাত নয়টার দিকে রাজধানীর গোপীবাগ কাঁচাবাজারের কাছে এসে থেমে যায় বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনটি। সে সময় ট্রেনের কয়েকটি বগি থেকে ধোঁয়া উঠতে দেখেন। সে সময় ভেতর থেকে ভেসে আসছিল যাত্রীদের আর্তনাদ। ওই ঘটনায় নিহত হয়েছেন চারজন। হাসপাতালে ভর্তি আটজনের অবস্থাও শঙ্কামুক্ত নয় বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা।

এ ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে বিএনপি নেতা মোহাম্মদ নবী উল্লাহ নবী ছাড়াও যুবদলের সাতজনকে গ্রেপ্তার করেছে ডিবি লালবাগ ও ওয়ারী বিভাগ। তারা হলেন- কাজী মনসুর আলম, মো. ইকবাল হোসেন স্বপন, মো. রাসেল, দেলোয়ার হাকিম বিপ্লব, মো. সালাউদ্দিন, মো. কবির ও মো. হাসান আহমেদ।

একাত্তর/এসি
শুধুমাত্র বাহবা পেতেই বিএনপি ভারতীয় পণ্য বর্জনের কথা বলছে বলে মনে করেন সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. এ কে আব্দুল মোমেন।
কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আলতাফ হোসেন চৌধুরী।
বেনাপোল এক্সপ্রেসে আগুনে পুড়ে মারা যাওয়া চারজনের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে রেলওয়ে পুলিশ। ডিএনএ পরীক্ষায় পরিচয় শনাক্তের পর বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেলের মর্গ থেকে মরদেহগুলো স্বজনদের...
ডিএনএ টেস্টের মাধ্যমে বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুনের ঘটনায় নিখোঁজ চার যাত্রীর মরদেহ শনাক্ত করা হয়েছে। 
সাংগঠনিক অনিয়ম এবং বিশৃঙ্খলার অভিযোগে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে লাগাতার কর্মসূচির পর চট্টগ্রাম কলেজ শাখা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করা হয়েছে।
আদর্শ ও সংগঠনবিরোধী বক্তব্য দেয়ায় কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সদর উদ্দিন খানকে শোকজ (কারণ দর্শানো) নোটিশ দিয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটি।
মিয়ানমারের কাচিন রাজ্যে স্বর্ণ ও দামি অ্যামবার পাথরের খনিসমৃদ্ধ একটি এলাকার দখল নিয়েছে কাচিন ইন্ডিপেনডেন্স আর্মি (কেআইএ) ও তাদের মিত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলো। ছয় দিনের হামলার পর গত বৃহস্পতিবার তানাই...
রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে এক যুবকের হাত-পা বাধা মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।
লোডিং...
Nagad Ads
সর্বশেষপঠিত

এলাকার খবর


© ২০২৪ প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত