সেকশন

শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
 

রেনু চরিত্রের জন্য ওজন বাড়াতে হয়েছে: তিশা

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২৩, ২০:৩৮

দেশের দর্শক হৃদয় জয় করে শুক্রবার ভারতে মুক্তি পেলো ‌‘মুজিব: একটি জাতির রূপকার’। ছবিতে, বেগম মুজিবের পরিণত বয়সের চরিত্রে অভিনয় করা, অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা বলছেন, চরিত্রটি নির্মাণে তাকে প্রচুর পড়তে হয়েছে। বাড়াতে হয়েছে ওজনও। অনবদ্য অভিনয়ে এই অভিনেত্রী বঙ্গবন্ধুর জীবনে বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের কাজ ও ত্যাগ দারুণভাবে সিনেমায় ফুটিয়ে তুলেছেন। 

দেশে যখন 'মুজিব: একটি জাতির রূপকার' ছবি মুক্তি পায় তখন নুসরাত ইমরোজ তিশা তার অভিনীত আরেকটি ছবি নিয়ে ভিনদেশের মাটিতে। দক্ষিণ কোরিয়ার বুসানে অবস্থানকালেই তিনি ভেসেছেন দর্শক প্রশংসায়। তবে বলেছেন, ছবিটির প্রিমিয়ারে স্বশরীরে থাকতে পারলে তার ভালো লাগতো।

তিশা বলেন, তবে ঢাকা থেকে যে ধরনের প্রতিক্রিয়া পেয়েছি, তাতে আমি অভিভূত। ছবিতে আমার প্রতিটি মুহূর্তে ধরে আমার কাছে ক্ষুদে বার্তা এসেছে। প্রশংসা করেছে। আমার অভিনয়ের মাধ্যমে তারা চরিত্রের সঙ্গে মিশে যেতে পেরেছেন। এসব কারণে মনে হয়ে আমরা যতটুকুই পরিশ্রম করেছি, সেটা স্বার্থক হয়েছে।

রেনু চরিত্রের জন্য ওজন বাড়াতে হয়েছে: তিশা

চরিত্রটি নির্মাণে মূল চ্যালেঞ্জ তিশা পাড়ি দিয়েছেন এই সংক্রান্ত প্রচুর বই পড়ে। তিশা বলেন, বঙ্গবন্ধুর প্রচুর ভিডিও আছে। কিন্তু রেনুর (বঙ্গবন্ধুর সহধর্মনী) কোনো ভিডিও ছিলো না, তাই আমাকে প্রচুর পড়তে হয়েছে, বিভিন্ন মানুষের সঙ্গে কথা বলতে হয়েছে, চরিত্রটিতে বুঝতে হয়েছে। তারপরেই ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানো।

তাতে চরিত্রটি আত্মস্থ করা গেলেও, পর্দায় বেগম মুজিব চরিত্রে হাজির করতে শরীরের ওজন বেশ বাড়াতে হয়েছে তিশাকে। এ সম্পর্কে তিনি বলেন, চরিত্রের মেকাপ থেকে গেটআপ-সবই পরিচালক ও তার দলের সিদ্ধান্তেই হয়েছে। তবে হ্যাঁ, আমার একটি বিষয়ে বেশ কষ্ট করতে হয়েছে, অনেক ওজন বাড়াতে হয়েছে।

অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা রেনু চরিত্র নিয়ে আরও বলেন, ভয় ছিলো, শঙ্কা ছিলো, দ্বিধা ছিলো। কিন্তু তারপরেও মনে করি আমরা উতরে যেতে পারছি। কঠিন একটি পথ পাড়ি দিতে হয়েছে আমাদের। 

একাত্তর/এসি

কলকাতায় খুন হওয়া বাংলাদেশের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারের দেহাংশের খোঁজে এবার আটঘাট বেঁধে অভিযানে নেমেছে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ সিআইডি। 
পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলা পরিষদের দিঘিতে গোসল করতে নেমে পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে।
ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি দেশটির এমন একজন নেতা যার মৃত্যু মানতেই পারছেন না মুসলিম বিশ্বের কোটি কোটি মুসলিম মানুষ। এই নেতার মৃত্যুতে নানা ঘটনা-রটনা ষড়যন্ত্রতত্ত্ব সামনে আসছে।
গোটা বিশ্বকে হতবাক ও বিষ্মিত করে দেয়া এক ভয়াবহ হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় নিহত হন ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসাইন আমির আব্দুল্লাহিয়ানসহ আট জন। এরই মধ্যে চিরনিদ্রায় শায়িত...
লোডিং...
Nagad Ads
সর্বশেষপঠিত

এলাকার খবর


© ২০২৪ প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত