সেকশন

শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১
 

আনারের মাথার খুলি মিলবে, আশা পুলিশের 

আপডেট : ২৭ মে ২০২৪, ০৪:০৬ পিএম

কলকাতায় খুন হওয়া বাংলাদেশের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারের দেহাংশের খোঁজে তন্ন তন্ন করে তল্লাশি চালিয়েও তা পেতে ব্যর্থ হয়েছে কলকাতার গোয়েন্দারা। 

তবে বাংলাদেশের গোয়েন্দা (বিডি) প্রধান হারুন অর রশীদের নেতৃত্বে একটি দল কলাকাতায় পৌঁছানোর পর নিহত এমপির মাথার খুলি খুঁজে পাওয়ার আশা করছে দুই দেশের গোয়েন্দারা। 

যৌথ তদন্তের অংশ হিসেবে রোববার কলকাতায় যায় হারুনের নেতৃত্বাধীন গোয়েন্দা দল। সোমবার সকালে নিউ টাউনের সঞ্জীভা গার্ডেন পরিদর্শন করেন তারা। ডুপ্লেক্স ওই ভবনের একটি ফ্ল্যাটে আনারকে হত্যা করে মরদেহের হাড়-মাংস আলাদা করে বিভিন্ন জায়গায় ফেলে দেয়া হয়। 

এরপর দুপরের আবারো সঞ্জীভা গার্ডেনে যান বাংলাদেশের গোয়েন্দারা। এবার ঘটনাস্থলে আনা হয় কসাই জিহাদ হাওলাদারকে। আনারের দেহের মাংস কিমা করা ও হাড় টুকরো টুকরো করে ব্যাগে ভরে বিভিন্ন জায়গায় ফেলে দেয়ার জন্য এই জিহাদকে মুম্বাই থেকে ভাড়া করে আনা হয়। 

জিহাদ নিয়ে ফ্ল্যাটে প্রবেশ করেন ঢাকা ও কলকাতার গোয়েন্দারা। একবারে ঘটনাস্থল থেকে সূত্র মেলাতে সেখানে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন বাংলাদেশের গোয়েন্দারা।

এর আগে রোববার কসাই জিহাদকে জেরা করে বেশ কিছু নতুন তথ্য পেয়েছে ডিবির প্রতিনিধিরা। তদন্তের স্বার্থে এসব তথ্য প্রকাশ করা হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন তারা। 

কলকাতায় গিয়ে বাংলাদেশ পুলিশের বিশেষ দলটি কৃষ্ণমাটি খাল পরিদর্শন করেন। ওইখালে দেহাংশ ফেলা হয়েছে সন্দেহ কলকাতার গোয়েন্দাদের। জিহাদকে নিয়ে সেখানে কয়েকদফা অভিযানও চালিয়েছে তারা। 

তবে জিহাদকে জিজ্ঞেস করে নতুন তথ্য পাওয়ার ভিত্তিতে কলকাতা ও ঢাকার গোয়েন্দারা আাবাদী হয়ে উঠেছে যে, সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিমের দেহাংশের সব না পেলেও অন্তত মাথার খুলি পাওয়া যাবে। 

গত ১২ মে ঝিনাইদহর কালীগঞ্জ থেকে কলকাতায় যাওয়ার পরেরদিন রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়ে যান তিনবারের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার।

বুধবার সকালের দিকে তার খুনের খবর প্রকাশ্যে আসে। পুলিশ বলছে, কলকাতার উপকণ্ঠে নিউ টাউনের অভিজাত আবাসন সঞ্জীভা গার্ডেনের একটি ফ্ল্যাটে আনারকে খুন করা হয়।

খুনের আলামত মুছে ফেলতে দেহ কেটে টুকরো টুকরো করে ফেলা হয়। এরপর সুটকেস ও পলিথিনে ভরে ফেলে দেওয়া হয় বিভিন্ন জায়গায়।

হত্যাকাণ্ডের পর ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় তিনজনকে। এরা হলেন- হত্যাকাণ্ডের মূল সংঘটক ও চরমপন্থি সংগঠন পূর্ববাংলা কমিউনিস্ট পার্টির নেতা আমানুল্লাহ আমান ওরফে শিমুল ভুঁইয়া, শিলাস্তি রহমান ও ফয়সাল আলী ওরফে সাজি। এই তিনজনে শুক্রবার আটদিনের হেফাজতে পেয়েছে ডিবি। 

পুলিশ বলছে, পুরো হত্যাকাণ্ডের পরিকল্পনাকারী বা মাস্টারমাইন্ড হলেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী আখতারুজ্জামান শাহিন। এমপিকে হত্যার পর মরদেহের মাংস কিমা ও হাড় টুকরো টুকরো করে বিভিন্ন জায়গায় ফেলে দেওয়া হয়। কয়েকজন হত্যাকারীকে নিয়ে এ কাজে নেতৃত্ব দেন শিমুল। তিনি পরিচয় গোপন করে আমানউল্লাহ আমান নামে পাসপোর্ট করে কলকাতা যান।

মুম্বাই থেকে ভাড়া করে আনা জিহাদকে দিয়ে বিভিন্ন জায়গায় মরদেহ ফেলার পর বান্ধবী শিলাস্তিকে নিয়ে ঢাকায় ফেরেন শিমুল ভূঁইয়া। আখতারুজ্জামান শাহিনের সঙ্গে বৈঠক করেন। শাহিন দেশ ত্যাগ করে পালিয়ে যায়।

আরবি
সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারকে হত্যার উদ্দেশ্যে অপহরণের মামলায় গ্রেপ্তার ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টুকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার হত্যার ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার তদন্ত সঠিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। তদন্তে কারো কোনো হস্তক্ষেপ বা রাজনৈতিক চাপ নেই বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার হাবিবুর রহমান।
সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারকে হত্যার ঘটনায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক কাজী কামাল আহমেদ ওরফে গ্যাস বাবু।
সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার হত্যাকাণ্ডে ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টুর ‘সম্পৃক্ততা’ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অতিরিক্ত কমিশনার...
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার এইট পর্বে আরও একটি অগ্নিপরীক্ষার মুখোমুখি টাইগাররা। এই পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ আসরের অন্যতম ফেবারিট ভারত, যারা এখনও এ আসরে হারের স্বাদ নেয়নি। প্রথম...
রাজধানীর পল্টনের রূপায়ন তাজ টাওয়ারের একটি ভবন থেকে দুই যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তারা ওই ভবনেরই একটি অফিসে পিয়নের চাকরি করতেন।
দুঃসময় যেন পিছু ছাড়ছে না পাকিস্তান ক্রিকেট দলকে। চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রাথমিক পর্ব থেকে বিদায় নেয়ার পর বাবর আজমদের একের পর এক বিতর্ক আর সমালোচনা ঘিরে ধরেছে। সবশেষ পাকিস্তান দলের বিরুদ্ধে...
পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশে সাতদিনের জন্য ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। নিরাপত্তা উদ্বেগের কারণে পাঞ্জাব সরকার এ পদক্ষেপ নিয়েছে। শুক্রবার জিও নিউজের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। 
লোডিং...
Nagad Ads
সর্বশেষপঠিত

এলাকার খবর


© ২০২৪ প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত