সেকশন

সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১
 

বাংলাদেশি হত্যার ঘটনায় প্রথমবার মুখ খুললেন নিউইয়র্ক মেয়র

আপডেট : ১৮ মে ২০২৪, ১১:৪৮ এএম

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে নিজের বাড়িতে পুলিশের গুলিতে বাংলাদেশি তরুণ উইন রোজারিওর মৃত্যুর এক মাস পর প্রথমবারের মত দুঃখ প্রকাশ করলেন নিউইয়র্কের মেয়র এরিক অ্যাডামস। সংবাদ সম্মেলন করে বললেন, উইনের পরিবারের সাথে দেখা করেছেন তিনি। আর এই খবর প্রচারের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই মেয়রের দাবি অস্বীকার করেছে উইনের পরিবার।

নতুন করে আলোচনায় এলো যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশের গুলিতে নিহত বাংলাদেশি তরুণ উইন রোজারিও। কারণ নিউইয়র্ক শহরের মেয়র এবং উইনের পরিবারের পাল্টাপাল্টি বক্তব্য এসেছে সামনে।

নিউইয়র্কের মেয়র এরিক অ্যাডামস এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন ব্যক্তিগতভাবে তিনি উইনের পরিবারের সাথে দেখা করতে গিয়েছিলেন কিন্তু তারা কথা বলতে আস্বীকৃতি জানিয়েছেন।

পুলিশের গুলিতে বাবা-মায়ের সামনেই নিহত হন উইন রোজারিও।

এরিক বলেন, আমি ব্যক্তিগতভাবে ছেলেটির বাবা-মায়ের সাথে দেখা করতে গিয়েছিলাম। কিন্তু তখন তারা কথা বলতে চাননি। আমি একে অবশ্যই সম্মান করি। আমি বুঝি এমন একটি ঘটনা কতটা কষ্টের আর কতটা মর্মান্তিক।

অভিযুক্ত দুই পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা নেয়া হলো না, এমন প্রশ্নের জবাবে মেয়র বলেছেন, ঘটনার তদন্ত চলছে। 

তিনি আরও বলেন, বিষয়টা এক সহজ নয়। ঘটনার তদন্ত চলছে। এটা অ্যাটর্নি জেনারেলের সিদ্ধান্ত। তিনিই সিদ্ধান্ত নেবেন। এরপর অন্যান্য প্রক্রিয়া শেষ হবে।

এদিকে মেয়রের এই বক্তব্যের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই একে মিথ্যা বলে নাকচ করে দিয়েছে উইনের পরিবার।

 নিউইয়র্ক মেয়র এরিক অ্যাডামস (মাঝে)।

তাদের দাবি, মেয়র কখনই তাদের সাথে কথা বলার চেষ্টা করেননি। তবে কথা বলতে এলেও তারা মেয়রের সাথে কথা বলতেন না বলে জানিয়েছেন উইনের মা। 

তিনি বলেন, মেয়রের কাছ থেকে কোনো সহানুভূতি তারা চান না। তারা কেবল চান, ছেলের মৃত্যুর জন্য দায়ী পুলিশ সদস্যদের শাস্তি। 

সম্প্রতি রোজারিও পরিবারের পক্ষে তাদের আইনজীবী মেয়রকে আহবান জানিয়েছিলেন অভিযুক্ত দুই পুলিশ সদস্যকে যেন বরখাস্ত করা হয়। এছাড়াও রাজ্যের পুলিশের এমন বর্বরতার বিরুদ্ধে মেয়রের তেমন ক্ষোভ দেখা যায়নি বলেও সমালোচনা করেন তারা। 

উইনের মৃত্যুর পর থেকে এখন পর্যন্ত কোনো মন্তব্যই করেননি মেয়র এরিক অ্যাডামস। তবে গত সপ্তাহে সিটি হলে আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় তার সমালোচনার পর এই প্রথম এ বিষয়ে মুখ খুললেন তিনি। 

গেলো ২৭ মার্চ নিউইয়র্কের ওজনপার্ক এলাকায় বাসার ভেতরে পুলিশের উপর্যুপরি গুলিতে বাবা-মায়ের সামনেই নিহত হয়েছিলেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কিশোর উইন রোজারিও (১৯)। ঘটনাটি নিউইয়র্কে ব্যাপক চাঞ্চল্য ও ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে।   

আরবিএস
বিশ্বজুড়ে শান্তি সমৃদ্ধি কামনায় পৃথিবীর অন্য স্থানের মতো যুক্তরাষ্ট্রেও ঈদ পালন করেছেন প্রবাসীরা। এসময় সব ঈদের জামাত থেকে ফিলিস্তিনের মানুষের মুক্তি কামনা করে দোয়া করা হয়। ঈদের নামাজের পর ধর্মপ্রাণ...
২৮ মার্চ যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশের গুলিতে নিজ বাড়িতে বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত এক তরুণ নিহত হন। ১৯ বছর বয়সী ওই যুবকের নাম উইন রোজারিও। নিহতের ঘটনার পরে যুক্তরাষ্ট্র প্রশাসন ছেলেটিকে মানসিক ভারসাম্যহীন বলে...
যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক স্টেটের বাফেলো শহরে দুই প্রবাসী বাংলাদেশিকে ভরদুপুরে গুলি করে হত্যার ঘটনায় সন্দেহভাজন এক যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজ দেখে রোববার বিকালে তাকে...
প্রায় দশ হাজার মানুষের উপস্থিতিতে নিউইয়র্কের টাইমস স্কয়ারে বরণ করে নেয়া হলো বাংলা নতুন বছর। বাংলাদেশ ছাড়াও ভারত, থাইল্যান্ড ও নেপালের শিল্পীরা যোগ দেয় এই আয়োজনে।
ঢাকাই সিনেমার সুপারস্টার শাকিব খানের প্রাণনাশের আশঙ্কা করছেন তার ভক্তরা। তাই এই প্রিয় তারকার নিরাপত্তার দাবি করেছেন তারা।
গাইবান্ধায় চলন্ত ট্রেন দেখে রেললাইনে ঝাঁপিয়ে পড়ে দুই হাত তুলে দাঁড়ান এক নারী। কিন্তু ট্রেনটির আকষ্মিক গতিরোধ করার কোনো উপায় না থাকায় তাকে ধাক্কা দিলে মাথা থেতলে এবং বাম পা কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই নিহত...
নির্মাতা প্রযোজকদের মতে ঢালিউড ইন্ডাস্ট্রি টিকিয়ে রেখেছেন শাকিব খান। এই নায়কের সিনেমা মুক্তি পাওয়া মানেই প্রেক্ষাগৃহে প্রাণ ফিরে আসা।
লোডিং...
Nagad Ads
সর্বশেষপঠিত

এলাকার খবর


© ২০২৪ প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত