সেকশন

শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
 

ঐতিহাসিক রায়ে কারাগার থেকে বাড়ি ফিরলো ৭০ শিশু

আপডেট : ১৩ অক্টোবর ২০২১, ০৪:২৩ পিএম

আসন্ন শিশু দিবসকে সামনে রেখে কারাগারে থাকা ৭০ জন শিশুকে সংশোধনের জন্য মা-বাবার জিম্মায় পাঠানোর বিরল রায় দিয়েছেন সুনামগঞ্জের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল ও শিশু আদালত। আদালতের এই রায়ের ফলে লঘু অপরাধের ৫০টি ভিন্ন মামলায় ৭০ জন শিশু এখন নিজের বাড়িতে পরিবারের সঙ্গে থেকেি নিজেদের সংশোধন করার সুযোগ পেলো। 

বুধবার (১৩ অক্টোবর) সকালে সুনামগঞ্জ নারী শিশু ও নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল ও শিশু আদালতের বিচারক মো. জাকির হোসেন এই রায় দেন। কারাগার থেকে বের হওয়ার পর আদালত কর্তৃপক্ষ ওই শিশুদেরকে ফুল দিয়ে বরণ করেন।

আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী, বাড়িতে ফেরার পর ওই শিশুদের কার্যক্রম ও গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করবেন সমাজসেবা অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা। 

সুনামগঞ্জ নারী ও শিশু আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর এডভোকেট নান্টু রায় বলেন, কোমলমতি এই ৭০ জন শিশুকে পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে মামলায় জড়ানো হয়েছিল। অভিযুক্ত এসব শিশুদের পরিবারের সঙ্গে আদালতে হাজিরা দিতে হতো। এর ফলে শিশুদের ভবিষ্যত এক অনিশ্চিয়তার মুখে পড়ে। তাদের শিক্ষাজীবন ব্যহত হয়। স্বাভাবিক জীবনে শিশুদের বেড়ে ওঠা হুমকির সম্মুখীন হয়। শিশুদেরকে এসব অসুবিধা থেকে মুক্তি দিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে নিতে মামলা সমূহ দ্রুত নিস্পত্তি করে দিয়েছেন বিচারক। 

তিনি আরও জানান, কারাগারের পরিবর্তে পরিবারের সদস্যদের সাথে রেখে সংশোধনের কিছু নির্দেশনাও দিয়েছেন আদালত। পরিবারের সান্নিধ্যে এসব কোমলমতি শিশুরা স্বাভাবিকভাবে বেড়ে ওঠার সুযোগ পাবে এবং সুন্দর জীবন গঠনের সুযোগ পাবে। এসব শিশুদের জীবনকে আরও সুন্দরভাবে গড়ার জন্য বিচারকের এমন বিরল রায়কে আমরা শ্রদ্ধা জানাই।

image


যে সব শর্তে শিশুদের সংশোধনের সুযোগ দিয়ে পরিবারের কাছে ফেরত পাঠানো হয়েছে সেগুলো ঠিকঠাক পালন করা হচ্ছে কিনা তা আগামী এক বছর জেলা প্রবেশন কর্মকর্তা মো. শফিউর রহমান পর্যবেক্ষণ করবেন এবং প্রতি তিনমাস অন্তর অন্তর আদালতকে অবহিত করবেন। 

এডভোকেট নান্টু রায় বলেন, যে সব শর্তাবলী পালনের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত তা হলো; প্রতিদিন দুইটি ভালো কাজ করা এবং তা তাদেরকে আদালত কর্তৃক প্রদত্ত ডায়েরিতে তা লিখে রাখা ও বছর শেষে ডায়েরি আদালতে জমা দেওয়া, বাবা-মাসহ গুরুজনদের আদেশ নির্দেশ মেনে চলা এবং বাবা মায়ের সেবা যত্ন করা ও কাজে কর্মে তাদের সাহায্য করা, নিয়মিত ধর্মগ্রন্থ পাঠ করা এবং ধর্মকর্ম পালন করা, অসৎ সঙ্গ ত্যাগ করা, মাদক থেকে দূরে থাকা,  ভবিষ্যতে কোন অপরাধের সাথে নিজেকে না জড়ানোসহ আরও কিছু নির্দেশনা পালনের শর্ত দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন: এবার ৫২ পদ নিয়ে কলকাতা মাতাচ্ছেন নয়না

তিনি আরও বলেন, আদালতের নির্দেশনাগুলো তাদের সুনাগরিক হিসাবে গড়ে ওঠার সুযোগ দেবে। শিশুরা তাদের আপন ঠিকানা ফিরে পেলে স্বাভাবিক বিকশিত হবে এবং বাবা-মা’র দু:শ্চিন্তার অবসান হবে।


একাত্তর/আরবিএস  

পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলা পরিষদের দিঘিতে গোসল করতে নেমে পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে।
আনার হত্যার কিলিং মিশনে নেতৃত্ব দেয়া আমানউল্লাহ আমানের নাম মূলত শিমুল ভূঁইয়া। গোয়েন্দারা জানিয়েছেন, অতীতের অপরাধ মুছতে কিছুদিন আগে সে তার পাসপোর্ট বদল করেছে।
কক্সবাজারের উখিয়ায় বালুখালী ১৩ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুন লেগেছে। ইতিমধ্যে ওই আগুন ছড়িয়ে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। তবে এর সূত্রপাত কীভাবে সেটি এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
নারায়ণগঞ্জে স্বামীর পরকীয়ায় বাধা দেওয়ায় স্ত্রীকে হত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার সকালে জেলার সোনারগাঁও উপজেলার ভট্টপুর এলাকায় একটি পুকুর থেকে ওই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
কলকাতায় খুন হওয়া বাংলাদেশের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারের দেহাংশের খোঁজে এবার আটঘাট বেঁধে অভিযানে নেমেছে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ সিআইডি। 
পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলা পরিষদের দিঘিতে গোসল করতে নেমে পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে।
ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি দেশটির এমন একজন নেতা যার মৃত্যু মানতেই পারছেন না মুসলিম বিশ্বের কোটি কোটি মুসলিম মানুষ। এই নেতার মৃত্যুতে নানা ঘটনা-রটনা ষড়যন্ত্রতত্ত্ব সামনে আসছে।
গোটা বিশ্বকে হতবাক ও বিষ্মিত করে দেয়া এক ভয়াবহ হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় নিহত হন ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসাইন আমির আব্দুল্লাহিয়ানসহ আট জন। এরই মধ্যে চিরনিদ্রায় শায়িত...
লোডিং...
Nagad Ads
সর্বশেষপঠিত

এলাকার খবর


© ২০২৪ প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত