সেকশন

রোববার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১
 

গাজার নিচে হামাসের সুড়ঙ্গ, যেন এক মূর্তিমান আতঙ্ক

আপডেট : ১৪ অক্টোবর ২০২৩, ০২:০৯ পিএম

পুরো গাজার নিচে মাকড়শার জালের মতো ছড়িয়ে আছে হামাসের সুড়ঙ্গ, যা ইসরাইলি বাহিনীর জন্য এক মূর্তিমান আতঙ্ক। এই টানেলগুলোকেই বহির্বিশ্বের সঙ্গে গাজার যোগাযোগের একমাত্র পথ হিসেবে ধরা হয়। হামাসসহ গাজার সশস্ত্র গোষ্ঠীরা বিভিন্ন সময়ে সুড়ঙ্গে তাদের সংগৃহীত গোলাবারুদ লুকিয়ে রাখে।

অবরুদ্ধ শহর গাজার মাটির নিচে যেন আরেক জগৎ। ওপরে যতটা, নিচেও যেন ঠিক ততটাই। পুরো গাজার নিচে মাকড়শার জালের মতো ছড়িয়ে আছে হামাসের সুড়ঙ্গ। 

বিশ্বের সবচেয়ে বড় উন্মুক্ত কারাগার হিসেবে পরিচিত ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকার একপাশে ইসরাইলের সীমান্ত, অন্য পাশে মিশর আর ভূমধ্যসাগর। তাই বহির্বিশ্বের সঙ্গে গাজার যোগাযোগের জন্য বলা যায় একমাত্র পথ এই টানেলগুলো।

২০০৭ সালে হামাস প্রথম সুড়ঙ্গটি নির্মাণ করে গাজা উপত্যকা ও মিশরের মাঝামাঝি অংশে। মূলত ইসরাইলের অবরোধ এড়িয়ে সাধারণ ফিলিস্তিনিদের জন্য ভোগ্যপণ্য সরবরাহ সুড়ঙ্গটি নির্মাণের মূল লক্ষ্য ছিলো। এ ধারণাকে কাজে লাগিয়ে ২০১৩ সালে ইসরাইলমুখী সুড়ঙ্গ তৈরি শুরু করে হামাস। 

গাজার নিচে হামাসের সুড়ঙ্গ। ইমেজ- স্যালন।

সেই সময় ইসরাইল-গাজা সীমান্তে কমপক্ষে তিনটি সুড়ঙ্গ নির্মাণ করা হয়। এর মধ্যে দুটি সুড়ঙ্গ বিস্ফোরকে বোঝাই ছিল। ইসরাইল ও মিসর নিয়মিত এই সুড়ঙ্গপথ ধ্বংসের চেষ্টা চালালেও এখনও এর বেশিরভাগ অংশ অক্ষত রয়েছে।

হামাসসহ গাজার সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলো বিভিন্ন সময়ে সুড়ঙ্গে তাদের সংগৃহীত ক্ষেপণাস্ত্র, রকেট, গোলাবারুদ লুকিয়ে রাখে। যোদ্ধাদের গোপন আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবেও ব্যবহৃত হয় সেগুলো। এমনকি সমরাস্ত্র তৈরির কারখানাও রয়েছে এসব টানেলে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, হামাস ইরান থেকে সুড়ঙ্গপথে গাজায় অস্ত্র নিয়ে আসে। এর মধ্যে দূরপাল্লার অস্ত্রও থাকে। এছাড়া গাজায় অস্ত্র উৎপাদনের জন্য উপকরণও পাঠায় তারা।

একাত্তর/আরবিএস  

রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন নতুন সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান।
রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার হৃদযন্ত্রে পেসমেকার বসানোর কাজ শুরু হয়েছে।
রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোড ও এর পাশে এলাকায় আলাদা দুর্ঘটনায় দুই যুবক ট্রেনে কাটা পড়ে মারা গেছেন। তাদের মধ্যে একজন কানে ইয়ারফোন গুঁজে রেললাইনে হাঁটছিলেন এবং অন্যজন অসতর্কভাবে রেললাইন পার হতে গিয়ে...
পুলিশের উচ্চপদের ৪০ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার পদে রদবদল হয়েছে। এদের মধ্যে ৯ জন ডিআইজি ও ১৪ জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) রয়েছেন। 
লোডিং...
Nagad Ads
সর্বশেষপঠিত

এলাকার খবর


© ২০২৪ প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত